রাজশাহীর বাগমারা-পুঠিয়ায় দুই জনের শরীরে করোনা ভাইরাস সনাক্ত

নুর কুতুবুল আলম, বাগমারা (রাজশাহী) প্রতিনিধি: রাজশাহীর বাগমারায় একজনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে। ঐ ব্যাক্তি নারায়গঞ্জ ফেরত ছিলেন। এ নিয়ে রাজশাহী জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাড়ালো ২ এ। সোমবার বিকেলে রাজশাহী মেডিকেল কলেজের করোনা ল্যাবে তার নমুনা পরীক্ষার পর বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছেন চিকিৎসকরা।

সংক্রমিত ব্যক্তি পেশায় টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার। তার বয়স ২৬বছর। তিনি নারায়ণগঞ্জে চাকরি করেন।

রাজশাহীর সিভিল সার্জন ডা. এনামুল হক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান,সংক্রমিত যুবকের বাড়ি বাগমারা উপজেলার মাড়িয়া ইউনিয়নের যাত্রাগাছী গ্রামে। তার শরীরে বর্তমানে করোনা কোনো উপসর্গই নেই। সর্দিজ্বর ও কাশি বা গলাব্যথাও নেই। তবে নারায়ণগঞ্জ থেকে ফেরার পর তার প্রাথমিক উপসর্গ দেখা দেয়। এরপর গত ১০ এপ্রিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ল্যাবে পাঠানো হয়। পরীক্ষার করোনা পজিটিভ পাওয়া গেছে। ল্যাবের রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর ওই গ্রামের কয়েকটি বাড়ি লকডাউনের সুপারিশ করা হয়েছে। পাশাপাশি তাকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। বর্তমানে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক নয়।

সিভিল সার্জন আবারো বললেন, এই মুহূর্তে রাজশাহীকে পুরোপুরি লকডাউনের কোনো বিকল্প নেই। বিশেষ করে যারা ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ থেকে রাজশাহীতে আসছেন তাদের নিয়েই আমাদের উৎকণ্ঠা বেশি। অনেকে বাড়িতে ফিরে আত্মগোপনের থাকছেন। উপসর্গ ধরা পড়লেও চিকিৎসকের শরণাপন্ন হচ্ছেন না। এতে আশেপাশের লোকজনও সংক্রমিত হবে। কাজেই কোনো ধরনের লুকোচুরি না যাবে না।

এর আগে শনিবার (১২ এপ্রিল) রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার ঝলমলিয়া বগুড়াপাড়ায় নারায়গঞ্জ ফেরত এক ব্যক্তির শরীরে প্রথম করোনা ভাইরাস পাওয়া যায়। ঐ ব্যক্তিও নারায়গঞ্জ থেকে এসেছিলেন। পুঠিয়ায় প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী পাওয়ার পরই রোগীর বাড়ি ও তার শ্বশুরবাড়িসহ আশপাশের ৪৩টি পরিবারকে লকডাউন করা হয়ে।