রাজরাজেশ্বর পদ্মায় নৌ দুর্ঘটনারোধে বিলীন ভবনের পাশে দেয়া হলো বয়া

মোহাম্মদ বিপ্লব সরকার, চাঁদপুর প্রতিনিধি: চাঁদপুরের রাজরাজেশ্বরের পদ্মা নদীতে নৌ দুর্ঘটনা রোধে ডুবন্ত স্কুল কাম সাইক্লোন শেল্টারের পাশে বসানো হয়েছে একটি রেক বয়া। রোববার সকালে ভবনের ভেসে থাকা মাস্তুলে দেয়া হয় লাল নিশানা এবং পাশেই বসানো হয় বয়াটি।
এতে করে ওই স্থানে দুর্ঘটনার আশংকা কমলো। অপ্রিয় হলেও সত্য, দুর্ঘটনার কথা জেনেও কর্তৃপক্ষ প্রায় ৭২ ঘন্টা পর বয়াটি স্থাপন করলো। বিআইডাব্লিউটিএর যুগ্ম উপপরিচালক নৌপথ মো. মাহমুদুল হাসান বলেন, ভবনটি রাজরাজেশ্বরের পদ্মায় পড়েছে গত কয়েকদিন আগে। কিন্তু আমরা তেমন প্রস্তুত ছিলাম না। পরে আমাদের বিষয়টি সংবাদ মাধ্যম ও স্থানীয় চেয়ারম্যানের মাধ্যমে জানানোর পর ওই স্থানে নৌদুর্ঘটনা রোধে একটি রেক বয়া ও লাল নিশানা দিয়েছি।
এটি চাঁদপুরেই ছিল। এটি নদীতে দিনেতো দেখা যাবেই, রাতেও দেখা যাবে। এদিকে রাজরাজেশ্বর ইউপি চেয়ারম্যান হযরত আলী বেপারী বলেন, ভাঙনের কারণে স্কুল কাম সাইক্লোন শেল্টারটি জোয়ারের সময় পানির নিচে তলিয়ে থাকে। আর ভাটার সময় ভবনের উপরের কিছু অংশ দেখা যায়। কোন জাহাজ যদি এর উপর দিয়ে যায় তাহলেতো দুর্ঘটনা ঘটার আশংকা ছিল।
তিনি জানান, এ রুট দিয়ে মালবাহী শিপ ও জাহাজগুলো ঢাকা, চট্টগ্রাম, আরিচা, নোঙরবাড়ি, মাওয়া, ফরিদপুরসহ বিভিন্ন জায়গায় যাতায়াত করে। উল্লেখ্য, চাঁদপুর সদর উপজেলার রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নে পদ্মা ভাঙনে বিলীন হয়ে গেছে ২ কোটি ২৯ লাখ টাকা ব্যয়ে নবনির্মিত স্কুল কাম সাইক্লোন শেল্টার। সেই সাথে স্কুল এলাকার লক্ষ্মীরচরে ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। গত কয়েক দিনের ভাঙনে ভবন এলাকার চারপাশে নদীগর্ভে চলে যায়। ভবনটি পানির মধ্যে দাঁড়িয়ে থাকলেও শেষ পর্যন্ত বৃহস্পতিবার তা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়।