রাজবাড়ী পাংশায় বিদ্যুৎ অফিস এ অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ

 মোঃ শাহিন রেজা, রাজবাড়ী জেলা প্রতিনিধি: রাজবাড়ীর পাংশা বিদ্যুৎ অফিস অনিয়ম দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত হয়েছে বলে অভিযোগ হাজারো গ্রাহকের। ঘন ঘন লোডশোডিং, নিয়ম বর্হিভূত বিদ্যুৎ সংযোগ, ভূতুরে বিল, ঘুষ, দুর্নীতি, অনিয়মের মাধ্যমে গ্রাহকদের জিম্মি করে হাতিয়ে নিচ্ছে কোটি কোটি টাকা। গ্রাহকদের অভিযোগ, ওয়েস্টজোন পাওয়ার ডিসট্রিবিউশন পাংশা শাখায় কর্মরত অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দৌরাত্বের কাছে অসহায় সাধারণ জনগণ।

প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনায় প্রাণহানি পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গৃহীত ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ প্রকল্পের সুফলও হচ্ছে প্রশ্নবিদ্ধ। সামপ্রতিক সময়ে পাংশা পৌরসভায় মাত্র পাঁচদিনের ব্যবধানেই বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যুসহ অসংখ্য গ্রহকের এসেছে ভূতুরে বিল! তারউপর আছে ঘন ঘন লোডশোডিং। ফলে বাণিজ্যিক ও বাসাবাড়ির ইলেকট্রনিক্স ও ইলেকট্রিক যন্ত্রাংশ বিকল হচ্ছে প্রতিনিয়তই। এতে জনসাধারণকে দিতে হচ্ছে আর্থিক মাশুল। এ ছাড়াও বিদ্যুতনির্ভর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও যানবাহনগুলো পর্যাপ্ত বিদ্যুৎ না পাওয়ায় মুখ থুবরে পড়েছে তাদের চলমান কার্যক্রম।

সব কিছু মিলে পাংশার বিদ্যুৎ অফিসের অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাছে নাকাল পাংশাবাসী। সরেজমিনে পাংশার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে, ভূক্তভোগীদের দেওয়া তথ্যে পাংশা বিদ্যুৎ অফিসের অনিয়ম দুর্নীতির চিত্র পরিলক্ষিত হয়েছে। করোনায় কর্মহীন মানুষ যখন ঘরে বসে বেকার ঠিক তখনই দু:শ্চিন্তা বাড়িয়েছে ভূতুরে বিল। পাশাপাশি নিন্মমানের ইলেকট্রিক সরঞ্জাম দিয়ে বিদ্যুতের যত্রতত্র সংযোগ দেওয়ায় সামান্য ঝড়বৃষ্টিতেই ছিঁড়ে পড়ছে তারউপরে পড়ছে বৈদ্যুতিক পোল।

এতে প্রতিনিয়তই বাড়ছে প্রাণহানি। ভূত এমনিতেই নাচে-ধুপ পেলে যেন আরও বেশি নাচে- এই প্রবাদটির মতোই পাংশা বিদ্যুৎ অফিস অনিয়ম দুর্নীতির ভাণ্ডার। এই করোনাতে সেটা আরও ফুলেফেঁপে উঠেছে। পাংশা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম পাংশা বিদ্যুৎ অফিসের চলমান কার্যক্রম নিয়ে মুখ খুলতে অসম্মতি জানিয়েছেন।