রংপুর সিটি কর্পোরেশনের সহকারী প্রকৌশলী রফিকুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত

মাহফুজ আলম প্রিন্স, রংপুর প্রতিনিধিঃ রংপুর সিটি কর্পোরেশনে এক কোটি টাকার উর্দ্ধে অতিরিক্ত বিল দাখিলের ঘটনায় এক সহকারী প্রকৌশলীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। আজ রোববার রংপুর সিটি কর্পোরেশন মেয়র তাকে সাময়িক বরখাস্তের আদেশ দিয়েছেন।

জানাগেছে, রংপুর মহানগরীর প্রথম শ্রেণীর ঠিকাদার মেসার্স খায়রুল কবির রানার বিল প্রদানে অতিরিক্ত কোটি টাকার উর্দ্ধে বিল দাখিল করেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের সহকারী প্রকৌশলী মোঃ রফিকুল ইসলাম। অতিরিক্ত বিল প্রদানের ঘটনা সুষ্ঠ তদন্তের জন্য সম্প্রতি একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন রংপুর সিটি কর্পোরেশন।

ঐ তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন অনুযায়ী তাকে সাময়িক বরখাস্তে আদেশ জারি করেন বলে জানাগেছে।

এ ব্যাপারে সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা জানান, একটি ঠিকাদারি কাজের বিলে ৯৮ লাখ টাকা বেশি দেখানোর কারনে সহকারী প্রকৌশলী মোঃ রফিকুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়ে ছিল। তাকে কারনদর্শানো হলে সে ক্ষমা চেয়েছিল। কিন্তু ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ করায় তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

অপরদিকে অভিযুক্ত প্রকৌশলী মোঃ রফিকুল ইসলাম জানান, কম্পিউটারে অনিচ্ছাকৃতভাবে যোগবিয়োগে ভুল হয়েছিল। গত ১৮মে স্বাক্ষরিত সাময়িক বরখাস্তের আদেশ ৩১ মে দেওয়া হয়েছে।রংপুর সিটি কর্পোরেশনের একটি সুত্র জানায়, মেসার্স খায়রুল কবির রানার নামে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের একটি কাজের বিল হয়ে ছিলো এক কোটি ১০লাখ টাকা। কাজের প্রকল্প পরিদর্শক রায়হান কবীর ও সহকারী প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম অতিরিক্ত দুই কোটি ১৪লাখ টাকার বিল হিসেবে দাখিল করেন।

এ বিলে স্বাক্ষর করেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আজম আলী। এ ঘটনায় সহকারী প্রকৌশলী আবু সালেহ মোঃ জাফরসহ ৩সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন রংপুর সিটি কর্পোরেশন। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন সাপেক্ষে রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আজম আলীসহ ৩জনকে কারনদর্শানো নোটিশ প্রদান করা হলেও সহকারী প্রকৌশলী রফিকুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

তবে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মোঃ এমদাদ হোসেনের সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঢাকায় অবস্থানের কারণে তাকে ফোনে পাওয়া যায়নি।