রংপুরে সহিংস উগ্রবাদ প্রতিরোধে করনীয় সভা অনুষ্ঠিত

আইএস বা আল কায়দার সাথে বাংলাদেশের নব্য জিএমবির কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। তবে আফগানিস্থান ও পাকিস্তান থেকে উদ্ভুত বাইরের মতাদর্শে আনসারুল্লাহ বাংলা টিমসহ যে আটটি সংগঠন তাদের মতবাদ অনুসরন করে তাদের নিষিদ্ধ করা হয়েছে। পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে এদেশে জঙ্গীবাদের উত্থান সম্ভব নয়। ইতোমধ্যে সকল উগ্র জঙ্গীবাদ প্রতিরোধে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

তবে শুধু দুই লাখ পুলিশের চার লাখ চোখ দিয়ে ১৭ কোটি মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত সম্ভব নয়,সেজন্য রাজনৈতিক দল,শুসীল সমাজ, গনমাধ্যম,শিক্ষক,ঈমাম পুরোহিতের সামাজিক সম্প্রীতির মাধ্যমে সমন্বিত প্রচেষ্টায় উগ্র জঙ্গীবাদ রুখে দেয়া সম্ভব ।

আজ রাতে রংপুর পুলিশ লাইন স্কুল এন্ড কলেজ অডিটোরিয়ামে সহিংস উগ্রবাদ প্রতিরোধে সুশীল সমাজের সাথে মতবিনিয়ে প্রধান অতিথি হিসেবে পুলিশের কাউন্টার টেরিজম ইউনিটের প্রধান ডিআইজি মনিরুল ইসলাম এসব কথা বলেন। জেলা পুলিশের আয়োজনে পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাস ভট্রাচার্জ,মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার আবদুল আলীম মাহমুদ ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাফিয়া খানমসহ রাজনৈতিক,গনমাধ্যম ও পেশাজীবি নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।