যুবককে হত্যাচেষ্টা মামলা তুলে নিতে বাদীকে হুমকির অভিযোগ

 সাদিকুল ইসলাম সাদিক, নীলফামারী জেলা প্রতিনিধি: নীলফামারীর সৈয়দপুরে শ্রী তপু চন্দ্র রায় (১৮) নামের এক যুবকের পকেটে থাকা নগদ টাকা ও গলার চেইন ছিনিয়ে নিয়ে হত্যার চেষ্টা চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ মিলেছে।

গত ২৬ অক্টোবর ঘটে যাওয়া ঘটনার প্রেক্ষিতে ২৭ অক্টোবর স্থানীয় থানায় মামলা হওয়ায় তা তুলে নিতে হুমকি দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। মামলা সূত্রে জানা যায়, সৈয়দপুর পৌর এলাকার হাতিখানা মাছুয়াপাড়ার শ্রী নিরাশু চন্দ্র রায়ের ছেলে শ্রী তপুর চন্দ্র গত ২৬ অক্টোবর বিকেলে ট্রাক যোগে প্রতিমা বিসর্জনকালে শহরের দিনাজপুর রোড দহলা স’মিলের সামনে শহীদ তুলশীরাম সড়কস্থ ক্ষীতিশ চন্দ্র রায়ের ছেলে শ্রী নিতাই চট্টোপাধ্যায়, শিব প্রকাশের ছেলে দ্বীনানাথ, মৃত. ভুবেনশ্বর জাসওয়াল এর ছেলে প্রদীপ জাসওয়াল,

বিকাশ পোদ্দার, শংকর দাস ও নাটোর দই ঘরের স্বত্ত্বাধিকারী শ্রী প্রফুল্ল ঘোষের সাথে সামান্য ধাক্কা লাগে। ওই সময় প্রতীমা বহনকারী যুবক তপু চন্দ্র রায়কে অকথ্য ভাষায় গালাগাল দেওয়া হয়। এ নিয়ে প্রতিবাদ করা মাত্রই তারা লোহার রড দিয়ে এলোপাথারী মারপিট করে রক্তাক্ত করে। এক পর্যায়ে হত্যার উদ্দেশ্যে ওই যুবককে ধারালো অস্ত্র দিয়ে পেটের ভুড়ি বের করে ফেলার চেষ্টা চালানো হয় এবং যুবকটির পকেটে থাকা ১৯ হাজার টাকা ও গলায় থাকা ৮ আনা ওজনের সোনার চেইন ছিনিয়ে নেওয়া হয়।

ওই সময় যুবকটির চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এলে তারা পালিয়ে যায়। পরে প্রত্যক্ষদর্শীরা যুবকটিকে চিকিৎসার জন্য স্থানীয় ১০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করান। যুবকটিকে আঘাতের পর রক্তক্ষরণ বেশী হওয়ায় তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এনিয়ে ২৭ অক্টোবর স্থানীয় থানায় মামলা করা হয়েছে। মামলা নং-১৯। যুবকটির বাবা নিরাশু চন্দ্র রায় জানান, বিকাশ পোদ্দার ও প্রফুল্ল ঘোষ নামের দু ব্যক্তি তাকে মামলা তুলে নিতে নানা প্রকার হুমকি দিয়ে আসছে।

অতিসত্ত্বর মামলা তুলে নেওয়া না হলে হত্যা করে লাশ গুম করা হবে বলে হুমকি-ধামকি অব্যাহত রয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। এ বিষয়ে জানতে চাইলে থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল হাসনাত খান জানান, মামলাটির তদন্ত কাজ অব্যাহত আছে। প্রমাণ মিললেই আসামীদের গ্রেফতার করা হবে।