ময়মনসিংহে অবৈধ ভাবে গাছ কর্তন ও আত্মসাত করার অভিযোগ

আরিফুল ইসলাম হাবিব,ময়মনসিংহ প্রতিনিধি:ইউনা কিশোরগঞ্জ ৩০ জুন/২০২০ইং সম্প্রতি ইটনা সদরে সরকারী খাস ভুমির উপর থাকা আনুমানিক দেড়লক্ষাধিক টাকা মূল্যের গাছ অবৈধ ভাবে কর্তন ও আত্মসাত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ইটনা এসি ল্যান্ড বরাবরে লিখিত অভিযোকে জানাা যায় ইটনা সদর চতুল মৌজার ১ নং মতিয়ান ভূক্ত ৪১ নং দাগের ভূমিতে খাকা ১২ টি নানা জাতের মূল্যবাস বৃক্ষ (যাহার মূল্য আনুমানিক ১,৫০,০০০ /- দেড় লক্ষাধিক টাকা) কাটিয়া ফেলিছেন। উল্লেখ্য যে, এব্যপারে প্রথমে মৌখিক ভাবে ও পরে লিখিত ভাবে অভিযোগ করা হলেও তদন্তের জন্য দাযীত্ব প্রাপ্ত ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তার কোন জোরালো তৎপরতা পরিলক্ষিত হচ্ছে না। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষকে খতিয়ে দেখবেন বলে অভিঙ্গ মহল আসাবাধী।
কিশোরগঞ্জের ইটনা উপজেলা সদরে জনৈক কামাল হোসেন ও তার লোকজনের বিরুদ্ধে সরকারী খাস জায়গায় থাকা আনুমানিক দেড়লক্ষাধিক টাকা মুল্যের নানা জাতের গাছ গেটে আত্মসাতের একটি সুনির্দিষ্ট পাওয়া গেছে।
সহকারি কমিশনার (ভূমি) ইটনা বরাবরে লিখিত অভিযোগ পত্রের মর্মানুযায় জানাযায় যে। গত ০৭/০৬/২০ইং তারিখে ইটনা পশ্চিম গ্রাম নিকট কামাল হোসেন পিতা মৃত- আর করিম, জাবামিয়া, পিতা মৃত-আ: করিম, নজরুল পিতা মৃত- আঙ্গু মিয়া, খায়রুল পিতা মৃত- আঙ্গুর মিয়া ও তাদের লোকজন চতুল মোজাধীন ১ নং খতিয়ান ভুক্ত ১ নং দাগের অন্তর্গত খাস ভূমিতে থাকা- জাম, জারুর, রেইন্ট্র, মেহ গিনি ইত্যাদি নানা জাতের ১০ টি গাছ কাটিয়াছেন। যাহার মূল্য আনু: দেড়লক্ষাধিক টকা।
উল্লেখ্য যে, অভিযোগের কিশোরগঞ্জ ইটনা ইউ: ভূমি অফিসের কর্মকর্তা বাবু সুংকোন সাহা তাৎক্ষনিক ভারে ঘটনা স্থলে গিয়ে মৌখিক এর অভিযুক্তদের সতর্ক করলেও ঘটনাগুলো ফেলে রাখা কাঁটা গাচ সুগতি আইনি প্রক্রিয়ায সঙ্গে না করায় পরবর্তী সময়ে অভিযুক্তরা উহা অন্যত্র সরিয়ে ফেলে।
এব্যাপারে অভিযোগ কারী জরিরুল আলম ইউ-ভূমি কর্মকর্তা মুশেন সাহার সহিত যোগযোগ করিরে তিনি সু-কৌশলে বিষয়টি এরিয়ে যান।