মুক্তিযোদ্ধের বিজয় মেলার আয়োজনে চাঁদপুর মুক্ত দিবস পালন

মোহাম্মদ বিপ্লব সরকার, চাঁদপুর প্রতিনিধি: ৮ ডিসেম্বর চাঁদপুর মুক্ত দিবস উপলক্ষে চাঁদপুর মুক্ত দিবস পালন করা হয়েছে। ৮ ডিসেম্বর মঙ্গলবার সকাল ৯ টায় জেলা মুক্তিযুদ্ধা সংসদ,কার্যালয় প্রঙ্গন থেকে মুক্তিযোদ্ধের বিজয় মেলার কর্মকর্তাগন শেভাযাত্রা করে অঙ্গিকার সম্মুখে অবস্হান করে।

সেখানে মুক্ত দিবস উপলক্ষে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠীত হয়। জেলা মুক্তিযুদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার ও বিজয় মেলার স্মৃতিচারন পরিষদের আহ্বায়ক মুক্তিযুদ্ধা ইয়াকুব মাস্টারের সভাপতিত্বে ও বিজয় মেলার মহা- সচিব হারুন আল রশীদের সঞ্চালনায় আলোচনা সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। এসময় বক্তারা বলেন,আজকের দিনে চাঁদপুর পাকিস্তান হানাদার মুক্ত হয়েছিল।

এখন আবার পাকিস্তান হানাদার বাহীনির পেতাত্মারা বিজয়ের মাসে মাথাচারা দিয়ে উঠেছে। তরা জাতীর পিতার ভাস্কর্য ভাংচুর করেছে। তারা এ আঘাত করে জানান দিতে চেয়েছে। তাদের আমরা দাঁত ভাঙ্গা হবাব দিব। আমরা মুক্তিযুদ্ধারা জাতীর পিতামবঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সে দিন জীবন বাজী রেখে ৯ মাস যুদ্ধ করে স্বাধীনতা ছিনিয়ে এনেছি।

৮ ডিসেম্বর চাঁদপুর কে হানাদার মুক্ত করেছি। ১৯৯২ সাল থেকে চাঁদপুর শহরের হাসান আলী সরকারিমউচ্চ বিদ্যয়লয় মাঠে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা শুরু হয়ে ছিল। এ বছর বৈশ্বিক করোনা মহামারির কারণে বিজয় মেলা বন্ধ রাখা হয়েছে। তার পরও বিজয় মেলার পক্ষ থেকে চাঁদপুর মুক্ত দিবস পালন করা হচ্ছে। এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন, বিজয় মেলার চেয়ারম্যান অ্যাডঃ বদিউজ্জামান কিরণ, বিয়মেলার সাংস্কৃতিক পরিষদের আহবায়ক তপন সরকার, কবি ও লেখক ডাঃ পীযুষ কান্তি বড়ুয়া।

আরো উপস্হিত ছিলেন, বিজয় মেলার মাঠ ও মঞ্চ পরুষদের আহ্বায়ক ইয়াহিয়া কিরণ, মুক্তি যুদ্ধা,সানা উল্যা খান, মাঠও মঞ্চ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডঃ আমির উদ্দীন ভূইয়া মন্টু, আমল রক্ষিত মনা, নাট্য পরিষদের সচিব এম আর ইসলাম বাবু,মানিক পোদ্দার, সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম বাবু, মুনওয়ার কানন,এস এম সোহেল, শাহরিয়ার পলাশ, শাহ আলম, মাসুম বেপারীসহ মুক্তিযুদ্ধাগন। পরে অঙ্গীকারে শ্রদ্ধাঞ্জলী প্রদান করা হয়।