মিয়ানমারে পুলিশের গুলিতে আরো ৬ বিক্ষোভকারী নিহত

মিয়ানমারে সেদনাবাহনীর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ চলাকালে পুলিশের হামলা এবং গুলিতে অন্তত ছয়জন নিহত হয়েছে।

হামলায় আরো অন্তত ২০জন আহত হয়েছে। গতকাল দাওয়েই, ইয়াঙ্গুন ও মান্দালয় শহরে বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি ছুড়েছে নিরাপত্তা বাহিনী।

এতে অনেকেই হতাহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে তিনজন মারা যান দাওয়েই শহরে। দুজন মারা যান মান্দালয় শহরে এবং একজন ইয়াঙ্গুন শহরে। খবর বিবিসির।

১ ফেব্রুয়ারির সেনা অভ্যুত্থানের পর থেকে শুরু হওয়া বিক্ষোভ আজও অব্যাহত রয়েছে।

বিক্ষোভ দমাতে শনিবার থেকে বড় ধরনের ধরপাকড় অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। বহু বিক্ষোভকারীকে আটক করা হচ্ছে। এমনকি বিক্ষোভ ছত্রভঙ্গ করতে গুলিও ছুড়ছে তারা।

প্রধান শহর ও সাবেক রাজধানী ইয়াঙ্গুনে পুলিশ বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়েছে।

বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে স্টান গ্রেনেড ও টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করেও ব্যর্থতার পর পুলিশ গুলি চালায়।

গত নভেম্বরে অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে সু চির ক্ষমতাসীন দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি (এনএলডি) বিপুল ভোটে জয়লাভ করে।

যদিও সেনাবাহিনী ওই নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ তুলেছে।

তবে এ নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ এনে ১ ফেব্রুয়ারি রক্তপাতহীন অভ্যুত্থানের মাধ্যমে সু চি সরকারকে হটিয়ে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দখল করে সেনাবাহিনী।

গ্রেপ্তার হন সু চিসহ তার দলের শীর্ষস্থানীয় নেতারা। এরপর থেকেই রাজপথে বিক্ষোভ চলছে।

বিক্ষোভ দমাতে সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে সেনাসদস্য মোতায়েন ও বলপ্রয়োগের ঘটনা ঘটছে।

গত ১লা ফেব্রুয়ারি মিয়ানমার সেনাবাহিনী নির্বাচিত প্রতিনিধিদের আটক করে জোর পূর্বক ক্ষমতা দখল করে। এক বছরের জন্য জরুরি অবস্থা জারি করেছে।