মিঠাপুকুরে স্কুল ছাত্রীকে এসিড নিক্ষেপের হুমকি, ভুক্তভোগী পরিবারের সঠিক বিচারের দাবি

অমিরুল কবির সুজন, রংপুর প্রতিনিধি: রংপুরের মিঠাপুকুরে অষ্টম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তাকে পথরোধ করেছে এক যুবক। মেয়েটিকে ধর্ষণ করার উদ্দেশ্য ব্যার্থ হলে ওই বখাটে যুবক তাকে এসিড নিক্ষেপ করার হুমকি দিয়ে ঘটনা স্থল থেকে পালিয়ে যায়। ছেলেটির নাম লিক্ষাত হোসেন (১৯) সে উপজেলার ময়েনপুর ইউনিয়নর কদমতলা উত্তরপাড়া গ্রামের মৃত্যু আতিয়ার রহমানের ছেলে।
ঘটনার পর থেকে গা ঢাকা দিয়েছে লিক্ষাত। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা মিঠাপুকুর থানায় একটি অভিযোগ করেছে।

সরেজমিন ভুক্তভোগী পরিবার ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার কদমতলা উচ্চ বিদ্যালয় এলাকা থেকে ৪/৫ জন বান্ধবীসহ বাড়িতে আসার সময় মাঝপথে ওই বখাটে যুবক লিক্ষাত হোসেন তার বন্ধু ফিরাজ ও নিশাতসহ কয়েকজন মিলে মিম আকতার (১৩)কে পথরোধ করে। এরপর স্কুলছাত্রী মিম আকতারের হাতে থাকা বই-খাতা কেড়ে নিয়ে তাকে জোর পূর্বক প্রেমর প্রস্তাব দেয়। মেয়েটি তার প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে মেয়েটির সাথে বাকবন্ডিতা করতে থাকে ওই বখাটে যুবক। ঘটনার একপর্যায় স্থানীয় লোকজনকে এগিয়ে আসতে দেখে লিক্ষাত হোসেন স্কুলছাত্রী মিম আকতারকে এসিড নিক্ষেপ করার হুমকি দিয়ে সেখান থেকে পালিয়ে যায়।

ওই বখাটে যুবকের সহযাগী ফিরাজকে স্থানীয়রা আটক করে জিজ্ঞাসা করার সময় রহস্যজনক কারণে স্থানীয় ইউপি সদস্য শামিম মিয়া ও সাইদুর রহমান কৌশলে ছেলেটিকে আইনের আওতায় না দিয়ে ওই ছেলেকে ছেড়ে দেয়। এতে একদিকে ভুক্তভোগী মেয়েটি যেমন তার নিরাপত্তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করছে। অপরদিকে সঠিক বিচার পাবে কি-না এ নিয়ে জনমনে নানা জল্পনা-কল্পনার সৃষ্টি হয়েছে।

মিম আকতারের সাথে কথা বলে জানা যায়, প্রায় সময় আসা-যাওয়ার পথে লিক্ষাত হোসেন বিভিন্নভাবে তাকে উত্যক্ত করে আসছিলো। একপর্যায়ে মিম আকতারকে প্রেমের প্রস্তাব দেয় বখাটে লিক্ষাত হোসেন। এরপর থেকে ওই স্কুল ছাত্রীকে বিভিন্নভাবে বিরক্ত করে লিক্ষাত। গত শনিবার বিকেলে কদমতলা উচ্চ বিদ্যালয় এলাকা থেকে কয়েকজন বান্ধবীসহ প্রাইভেট পড়ে বাড়িতে আসার পথে তাদের পথরোধ করে লিক্ষাত। মিম আকতার সেদিনও তার প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তার পড়নের ওড়না কেড়ে নেয় ওই বখাটে।

ঘটনার একপর্যায় স্থানীয় লোকজনকে এগিয়ে আসতে দেখে মিম আকতারকে এসিড নিক্ষেপ করার হুমকি দিয়ে সেখান থেকে পালিয়ে যায় লিক্ষাত।

এ ঘটনার পর থেকে ওই এলাকার উড়তি বয়সের বখাটে ছেলেদের কারণে মেয়েদের নিরাপত্তা নিয়ে জনমনে নানা জল্পনা-কল্পনার দেখা দিয়েছে। নাম প্রকাশ না করার শর্ত স্থায়ীয় অনেকেই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ ও সঠিক বিচারর দাবি জানিয়ে বলেন, ঘটনার সঠিক তদন্ত করে অপরাধীকে আইনের মাধ্যম শাস্তি দিয়ে দষ্টান্ত স্থাপন করতে প্রশাসনের কঠোর অবস্থান নেয়া উচিৎ।

মিঠাপুকুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিরুজ্জামান বলন, ঘটনার তদন্ত চলছে, অপরাধের সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করার চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি ।