মিঠাপুকুরে ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থদের ঘর করে দিলেন প্রগতিশীল উন্নয়ন প্রচেষ্টা

আমিরুল কবির সুজন, মিঠাপুকুর প্রতিনিধিঃ রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলায় ২০টি পরিবারের মাঝে ঘর করার জন্য নতুন ঢেউটিন ও নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়েছে। ৬ জুন শুক্রবার বিকেলে উপজেলার কাশিমপুর গ্রামে অবস্থিত সেচ্ছাসেবী সংগঠন প্রগতিশীল উন্নয়ন প্রচেষ্ঠা (পিইউপি)’র কার্যালয়ে সংগঠনের নির্বাহী পরিচালক সাজ্জাদুর রহমান লাবলু এসব ঢেউটিন ও নগদ সহায়তা প্রদান করেন।

সম্প্রতি উপজেলার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া ঘূর্ণিঝড়ের কারনে ঘর-বাড়ি ভেঙ্গে নিঃস্ব হয়ে পড়া ক্ষতিগ্রস্থ ০২ টি পরিবারকে থাকার ঘর ও ২০ টি পরিবারের মাঝে ঘর নির্মাণ করার জন্য ২ বান্ডিল (১৬টি) করে ঢেউটিন ও নগদ অর্থ প্রদান করা হয়।

দুর্যোগে নিজেদের থাকার ঘর হারিয়ে দিশেহারা কাশিমপুর নয়াপাড়া গ্রামের মৃতঃ মতিয়ার মন্ডলের স্ত্রী রশিদা বেগম (৬০) বলেন, ঝড়ত মোর থ্যাইকপ্যার ঘর উড়ি নিয়া গেইছে মুই কোনটে থাকিম, তকনে লাবলু বাবা মোক ঘর করি দেছেন মোর খুব কামত নাগচে মুই এলা ওই ঘরত থাক। (ঝড়ে আমার থাকার ঘর উড়ে গেছে আমি কোথায় থাকবো এমন সময় লাবলু বাবা আমাকে ঘর করে দিয়েছেন আমার খুব উপকার হয়েছে আমি এখন ওই ঘরেই থাকি )। মৃতঃ দসু উদ্দিনের ছেলে আব্দুস সালাম (৫০), মৃতঃ এমাজ মিয়ার স্ত্রী খুকি বেগম (৪৫)সহ অনেকে এই সহায়তা পেয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

প্রগতিশীল উন্নয়ন প্রচেষ্ঠা (পিইউপি)’র নির্বাহী পরিচালক ও মিঠাপুকুর উপজেলা করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় স্বেচ্ছাসেবক কমিটির সাংগঠনিক স¤পাদক সাজ্জাদুর রহমান লাবলু বলেন, সংগঠন ও আমার ব্যাক্তিগত টাকায় মানবিক কারনে ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ ০২ টি পরিবারকে ঘর করে দেয়ার পাশাপাশি ২০ টি পরিবারকে সহায়তা করার চেষ্টা করেছি আগামিতেও সমাজের জন্য আরোও ভাল কিছু করার চেষ্টা করবো।

এ সময় প্রগতিশীল উন্নয়ন প্রচেষ্ঠা (পিইউপি)’র অর্থ সচিব ও মিঠাপুকুর উপজেলা করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় স্বেচ্ছাসেবক কমিটির সভাপতি ডাঃ মিজানুর রহমান, হাচিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ সামসুল আলম, ডাঃ আমিরুল মুমেনিন, মোকলেছার রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।