মিঠাপুকুরের জনপ্রিয় আম হাড়িভাঙ্গা জুন মাসেই পাওয়া যাবে বাজারে

 আমিরুল কবির সুজন, মিঠাপুকুর (রংপুর) প্রতিনিধি: বাংলাদেশে আমের বাজারে ভাগ বসিয়েছে মিঠাপুকুরের হাঁড়িভাঙ্গা আম। চলতি মাসে গাছ থেকে ‘হাঁড়িভাঙ্গা’ আম পাড়া শুরু হবে। অনলাইন মাধ্যম ছাড়াও বাজারে পাওয়া যাবে উপজেলার জনপ্রিয় ও সুস্বাদু এই আম। তবে মহামারি করোনাভাইরাসের প্রভাবে হাঁড়িভাঙ্গা আমের বাণিজ্যিক বাজার নিয়ে চিন্তিত এখানকার আমচাষিরা।
ঝড়-বৃষ্টির কারণে মুকুল কম ধরায় আমের কিছুটা ক্ষতি হয়েছে ফলনও হয়েছে কম। গতবারের তুলনায় কম ফলনের পাশাপাশি মহামারি করোনা ভাইরাসের কারনে দাম নিয়েও চিন্তিত চাষিরা। সঠিক সময়ে বাজারজাত করতে না পারলে বড় ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে এমনটাই শঙ্কা করছেন আমচাষিরা। উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানা গেছে, মিঠাপুকুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় এবার প্রায় দেড় হাজার হেক্টর জমিতে হাঁড়িভাঙ্গা আমের চাষ হয়েছে। জনপ্রিয়তার তালিকায় থাকা এই আম চলতি মাসের তৃতীয় সপ্তাহ অর্থাৎ ২০ জুন থেকে পরিপক্ক হবে।
এ সময়ে বাগান মালিকরা গাছ থেকে হাঁড়িভাঙ্গা আম পাড়তে পারবেন। তখন থেকে বাজারজাতও করা যাবে জনপ্রিয় হাঁড়িভাঙ্গা। উপজেলার খোড়াঘাছ ইউনিয়নের জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্ত আমচাষী আব্দুস সালাম সরকার জানান, জুনের তৃতীয় বা চতুর্থ সপ্তাহ থেকে এই আম পরিপক্ক হয়ে ওঠে, তখন বাজারজাত করা যায়। এই সময়ের মধ্যে আম বিক্রি না হলে গাছেই পচাতে হবে আম। তবে ইতোমধ্যে সুমিষ্ট এই আমের বাজারজাতকরণে কৃষি বিভাগ পরিকল্পনা গ্রহন করেছে।
সম্প্রতি জনপ্রিয় এই আম বাজারজাত করনের বিষয়ে উপজেলার খোড়াগাছ ইউনিয়নে আম চাষিদের সাথে মতবিনিময় সভা করেছেন জেলা প্রশাসক আসিব আহসান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মামুন ভুঁইয়ার সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় আলোচনা করেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক ড. সরওয়ারুল হক, মিঠাপুকুর উপজেলা চেয়ারম্যান জাকির হোসেন সরকার ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন। সভায় হাড়িভাঙ্গা আম বাজারজাত করনে চাষিদের প্রশাসনিকভাবে সহযোগিতা করার আশ্বাস দেওয়া হয়।