মালয়েশিয়ায় ডিটেনশন ক্যাম্পে বন্দীদের মাঝে বিএম গ্রুপের মানবিক সহযোগিতা

আশরাফুল মামুন, মালয়েশিয়া প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের ৩ হাজারেরও বেশি অভিবাসি আটক রয়েছে মালয়েশিয়ার সিমুনিয়া ক্যাম্পে। ছোট, বড় নানা অপরাধে জড়িত এসব অভিবাসীকে মালয়েশিয়ার বিভিন্ন স্থান থেকে ধরে এনেছে দেশটির ইমিগ্রেশন। এখান থেকেই আদালতে তোলা হয় আটককৃতদের।

পবিত্র রমজানে নারী, শিশুসহ এই সমস্ত অভিবাসীদের কাছে ইফতার সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন বাংলাদেশী মালিকানাধীন বিএম গ্রুপের চেয়ারম্যান ওয়াহিদা বিনতে মোহাম্মদ ইব্রাহীম ও স্বত্বাধীকারী আব্দুল হামিদ জাকারিয়া। গতকাল স্থানীয় সময় দুপুর একটায় সিমুনিয়া ক্যাম্পে পৌঁছালে ইফতার সামগ্রী গ্রহন করেন, সিমুনিয়া ইমিগ্রেশন ক্যাম্প প্রধান হাজিজাহ বিন আব্দুল্লাহ। পরে ক্যাম্পে আটককৃতদের মাঝে তা বিতরন করা হয়।

এসময় দু:সময়ে পাশে দাঁড়ানোয় হাজী জাকারিয়াকে টোকেন অব এ্যপ্রেসিয়েশন তুলে দেন সিমুনিয়া ইমিগ্রেশন ক্যাম্প প্রধান হাজিজাহ বিন আব্দুল্লাহ। একই সঙ্গে ধন্যবাদ জানান বাংলাদেশী এ ব্যবসায়ীকে।

এ প্রসঙ্গে কুমিল্লা প্রবাসী হাজী জাকারিয়া বলেন, কোভিড-১৯ এর কারনে বিশ্বব্যাপি অর্থনৈতিক মন্দা দেখা দিয়েছে। মালয়েশিয়ায়ও অনেকে খাবারের অভাবে কষ্ট পাচ্ছে। আমরা সবসময় চেষ্টা করেছি সমস্যায় থাকা মানুষের পাশে দাঁড়াতে। এর-ই অংশ হিসাবে আজ ক্যাম্পে আটক থাকা তিন হাজার দুই’শ মানুষের জন্য ইফতার সামগ্রী দিয়েছি।’

এসময় পবিত্র রমজান মাসে সমাজে বিত্তবানদের অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান হাজী জাকারিয়া।

এদিকে গত ১৮ই মার্চ থেকে করোনা প্রতিরোধে চলছে লকডাউন চলবে ১২ ই মে পর্যন্ত। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ব্যাপক সাফল্য অর্জন করায় মালয়েশিয়ায় গত ৪ই মে থেকে শর্তসাপেক্ষে লকডাউন শিথিল করেছে সরকার। আশা করা হচ্ছে ১২ ই মে থেকে লকডাউন প্রত্যাহার করে নেওয়া হতে পারে। এ পর্যন্ত দেশটিতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ১০৭ জন, আক্রান্ত হয়েছে ৬৫৩৫ জন, সুস্থ হয়েছেন ৪৮৬৪,গত ২৪ ঘন্টায় কেউ মারা যায়নি এবং আক্রান্ত হয়েছে ৬৮ জন।