মালয়েশিয়া প্রবাসীর স্ত্রী ও তিন সন্তানকে গলা কেটে হত্যা

আদনান মামুন, শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি: গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় একটি দোতলা বাসার দ্বিতীয় তলা থেকে এক মালয়েশিয়া প্রবাসীর স্ত্রী ও তাদের তিন সন্তানের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে শ্রীপুর উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের আবদার গ্রামে।

যাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে তারা হল, মালয়েশিয়া প্রবাসী কাজলের স্ত্রী ফাতেমা (৪০)। তাদের দুই মেয়ে নুরা (১৬), হাওয়ারিম (১১) এবং প্রতিবন্ধী ছেলে ফাদিল (৭)।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, প্রতিদিনের ন্যায় গত বুধবার রাতে তারা সকলেই দোতলা বাড়ির দোতলায় নিজ ঘরে ঘুমাতে যায়। সকাল গড়িয়ে দুপুর হলেও তারা কেউ ঘর থেকে বের না হওয়ায় নিহতের স্বজনরা মই বেয়ে দোতলায় উঠে ঘরের মেঝেতে রক্ত দেখতে পায়। পরে শ্রীপুর থানা পুলিশকে জানালে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশগুলো উদ্ধার করে। কিভাবে কেন তারা খুন হলো তা জানতে পুলিশ অনুসন্ধান শুরু করেছে।

কাজলের ছোট ভাই আরিফ সাংবাদিকদের জানায়, গেল রাতে তার ভাবি তাদের জন্য সকাল বেলা গোশত আনতে বলে রেখেছিল। আজ সকালে গোশত কেনার টাকা আনতে গিয়ে তাদের কোনো সাড়া পাওয়া যাচ্ছিল না। এভাবে সকাল পেরিয়ে দুপুর এলেও তারা কোনো সাড়া না দিলে মই বেয়ে দোতলায় উঠে ঘরের মেঝেতে রক্ত দেখতে দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়।

খবর পেয়ে গাজীপুরের পুলিশ সুপার, শ্রীপুর থানা পুলিশের একাধিক টিম,ক্রাইম সিন ইউনিট, সিআইডি সহ গাজীপুর ৩ আসনের সাংসদ ইকবাল হোসেন সবুজ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

গাজীপুর জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার রাসেল শেখ জানান, ধারনা করা হচ্ছে ধর্ষণের পর তাদেরকে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে। পুলিশ ঘটনার রহস্য উন্মেচনে কাজ শুরু করেছে।

শ্রীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ লিয়াকত আলী জানান, খবর পেয়ে বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে লাশগুলো উদ্ধার করা হয়। লাশের সুরত হাল তৈরী করা হচ্ছে। পরে ময়না তদন্তেরস জন্য লাশ গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মর্গে পাঠানে হবে। কেন কিভাবে ঘটনা ঘটেছে এসব জানার জন্য অনুসন্ধান চলছে।