মাধবদীতে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছেন আব্দুল আহাদ

সুমন পাল, মাধবদী প্রতিনিধিঃ গত ১৩ ডিসেম্বর মধ্যরাতে মাধবদী পৌর মেয়র মোশাররফ হোসেন মানিক বাহিনীর আহাদ ও আরিফ গ্রুপের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধ, গুলিবিদ্ধ ২ শিরোনামে বিভিন্ন অনলাইন পোর্টালে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে।

প্রকাশিত সংবাদে লেখা হয়েছে আহাদ ও আরিফ গ্রুপের মধ্যে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোদ্ধ চলে আসছে। ঘটনার দিন দু’পক্ষে গুলি বিনিময় হয়। এতে আহত হয় নুরালাপুর গ্রামের কাইয়ুমের ছেলে আশিক ও বিরামপুর গ্রামের জাকির হোসেনের ছেলে সাব্বির। সংবাদে আহাদ কিভাবে জার্মানি ব্যান্ডের গাড়ি ব্যবহার করে তা নিয়েও প্রশ্ন ওঠে।

১৪ ডিসেম্বর পৌর হলরুমে এ ব্যাপারে আব্দুল আহাদ প্রকাশিত সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন তার বিরুদ্ধে যে সমস্ত কথা বিভিন্ন অনলাইনে প্রকাশ হয়েছে তা সম্পূর্ন মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। প্রকৃত পক্ষে আমার বিরুদ্ধে এলাকার একটি কুচক্রি মহল আমার রাজনৈতিক ও পারিবারিক সুনাম নষ্ট করার জন্য সংবাদ দাতাকে ভুল তথ্য দিয়ে এ সংবাদ প্রকাশ করিয়েছে। আহাদ জানায় ঘটনার সময় আমি মাধবদীতে ছিলাম না।

আমি গত রাতে ঢাকায় স্কিন স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধিন ছিলাম। সে তার চিকিৎসা এবং শারিরিক পরিক্ষার কাগজ পত্র সংবাদকর্মীদের সামনে উপস্থাপন করেন। তিনি আরো জানায় সে একজন ব্যবসায়ী। তার কাপড়ের ব্যাবসা, সুতার গদি সহ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান রয়েছে। সে ২০১০ সাল থেকে তার বাবা নান্নু মিয়ার ব্যবসা নিজ দায়িত্বে পরিচালনা করে আসছেন।

সে ব্যবসা পরিচালনা করতে গিয়ে তিনটি ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে ব্যবসা করে বাড়ি গাড়ি করেছেন। আমি শহর আওয়ামীলীগের সহ দপ্তর সম্পাদকের পদে রয়েছি, সে হিসাবে আমার কিছু কর্মী ও সমর্থক রয়েছে। কিন্ত আমার কোন সন্ত্রাসী গ্রুপ নেই। প্রকৃত পক্ষে আরিফ ভাইয়ের সাথে আমার সু-সম্পর্ক রয়েছে। আমি রোববার রাতের ঘটনা সম্পর্কে কিছুই জানিনা। আমি উপস্থিত সাংবাদিক ভাইদের প্রতি অনুরোধ রাখবো যে,

ঘটনার সঠিক তদন্ত করে আপনাদের লেখনির মাধ্যমে সত্যকে উপস্থাপন করুন। মিথ্যে বানোয়াট সংবাদ পরিবেশনকারী সবার প্রতি অনুরোধ রইলো এ সমস্ত মিথ্যে ও ভুয়া সংবাদ প্রচার থেকে বিরত থাকুন। অন্যথায় আমি প্রচলিত আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহনের বাধ্য থাকিব। এব্যাপারে আমি সরকার ও প্রশাসনের সহযোগীতা কামনা করছি।