মাদ্রাসাছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ, যুবক গ্রেফতার

সাজেদুর রহমান, নাটোর প্রতিনিধিঃ নাটোরের গুরুদাসপুরের মামুদপুর গ্রামে এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে (১২) শ্লীলতাহানির অভিযোগে সবুজ সরকার (২৩) নামে এক বখাটে যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার দুপুরে এই শ্লীলতাহানির ঘটনা ঘটার পর রাতেই গুরুদাসপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন ওই ছাত্রীর বাবা। অভিযুক্ত সবুজ একই গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে। পুলিশ ও মামলা সূূত্রে জানাযায়, ওই ছাত্রী বাড়ির পাশের স্থানীয় একটি মসজিদের দোতলায় হাফেজিয়া মাদরাসায় লেখা-পড়া করে।

দীর্ঘদিন ধরে অভিযুক্ত সবুজ ছাত্রীকে উত্যক্ত করে আসছিল। ঘটনার দিন মসজিদ সংলগ্ন একটি গাছ বেয়ে সবুজ দোতলায় উঠে ঘরে ঢুকে ছাত্রীকে জাপটে ধরে শ্লীলতাহানি করে। এসময় ছাত্রীর ডাকচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে সবুজ পালিয়ে যায়। ছাত্রীর বাবা বলেন, তিনি অন্ধ হাফেজ। তার ছেলেটিও হাফেজ। মেয়েটি ৭ পারার হাফেজ।

বখাটে সবুজ তার মেয়েকে বিভিন্নভাবে উত্ত্যক্ত করে আসছিলেন। বার বার বাধা নিষেধ করলেও সবুজ কর্ণপাত করেননি। ঘটনার দিন মেয়েটি একা থাকার সুযোগে বখাটে সবুজ শ্লীলতাহানি করে। তিনি সবুজের বিচার দাবি করেন।

গুরুদাসপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আব্দুর রাজ্জাক জানান, শ্লীলতাহানির শিকার ছাত্রীর বাবার মামলা দায়ের করার পর রাতেই অভিযুক্ত সবুজকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শ্লীলতাহানির মামলায় রোববার দুপুরে সবুজকে আদালতের মাধ্যমে নাটোর জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।