মাগুরায় করোনা সতর্কতায় গোয়ালবাথান ব্লাড ডোনার্স স্বেচ্ছাসেবকরা

কৌশিক আহম্মেদ সোহাগ, মাগুড়া প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বে এখন ভয়াবহ আতংকের নাম করোনা ভাইরাস। এই মরণঘাতি সংক্রমণ প্রতিরোধে চাই সকলের সচেতনতা, সতর্কতা ও সকলে নিরাপদে থাকা। দেশের মানুষের এই দুঃসময়ে এখন সারাদেশে কাজ করছে বাংলাদেশ প্রশাসন। সেইসঙ্গে প্রশাসনের পাশাপাশি কাজ করছে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। এই ধারাবাহিকতায় মাগুরা সদর উপজেলার গোপালগ্রাম ইউনিয়নের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন গোয়ালবাথান হেল্প এন্ড ব্লাড ডোনার্স ক্লাবের সদস্যরা একযোগে কাজ করছে।

সংগঠনটি প্রশাসনের প্রচারণার পাশাপাশি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে প্রতিদিনই জেলার বিভিন্ন জায়গায় সতর্কতা ও প্রতিরোধমূলক নানা কার্যক্রম চালাচ্ছে তারা। এই সংগঠন থেকে আলাদাভাবে গঠন করা হয়েছে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে একটি প্রচার কার্যক্রম কমিটি। এতে তরুন সাংবাদিক মতিন রহমান-কে প্রধান সমন্বয়ক করে সমন্বয়কারী সদস্যরা কাজ করছে নিয়মিত।

করোনা সংক্রমণ সতর্কতার এই প্রচার কার্যক্রম টিমের প্রধান সমন্বয়ক তরুন সাংবাদিক মতিন রহমান বলেন, আমরা প্রতিটি কাজ মাগুরা জেলা প্রশাসন ও সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসারের নির্দেশনা ফলো করে সর্বদা কাজ করছি। দেশে ও দেশের মানুষের এই দুঃসময়ে তারা সবার সেবায় কাজ করার প্রত্যয়ব্যক্ত করেন।

জানা যায়, স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করছেন তরুন সাংবাদিক মতিন রহমান (প্রধান সমন্বয়ক) এবং সমন্বয়কারী সদস্য হিসেবে রুবেল জোয়ার্দার, মামুন রানা, মোঃ মিরাজুল ইসলাম, হৃদয় জোয়ার্দার, আব্দুল কুদ্দুস, তিতাস মোল্যা,রফিকুল ইসলাম, আশিকুর রহমান, মুন্সি ওবায়দুল্লাহ, সিরাজুল ইসলাম, হাবিবুর রহমান, সোহান রহমান, খলিল ইসলাম ও শেখ এনামুল।

করোনা সংক্রামক প্রতিরোধে সংগঠনটির কাজের বিষয়ে সংগঠনে প্রধান সমন্বয়ক আরো জানান, তারা হ্যান্ডমাইক নিয়ে গ্রামে গ্রামে ঢুকে সতর্কতামূলক কথা বলে মানুষকে করোনা সংক্রমণ নিয়ে করনীয় বিষয় সম্পর্কে বুঝানোর চেস্টা করছেন। বিদেশ ফেরত ব্যক্তিদের বাড়িতে সতর্কতামূলক লাল পতাকা উত্তোলন করছেন।

এছাড়া জীবাণুনাশক স্প্রে প্রয়োগ করা, মাস্ক, সবান, গ্লোভস বিতরণ করা, ত্রান সামগ্রী বিতরণ করা ,চায়ের দোকানবন্ধে লাল পতাকা উত্তোলন করা, বিভিন্ন দোকানের সামনে একজন ব্যাক্তি অন্যজন থেকে ৩ ফিট দুরত্বে থাকার বৃত্ত আঁকা সহ অন্যান্য কাজে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে সহযোগিতা করছেন তারা।

ইতিমধ্যে এই স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের এমন মহৎ কার্যক্রমে জেলা পর্যায়ে ব্যাপক সাড়া দিয়েছে এবং প্রশংসা পেয়েছে।