মাগুরার শত্রুজিৎপুরে গৃহবধূর মৃত্যু; মেয়ে পরিবারের দাবি হত্যা করা হয়েছে

মাগুরা সদর উপজেলার শত্রুজিৎপুরে এক গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু, নিহতের পরিবারের দাবি তাকে নির্যাতন করে মেরে ফেলা হয়েছে, শ্বশুরবাড়ির লোকজন বলছেন আত্মহত্যা, ময়নাতদন্ত শেষে ইউডি মামলা হয়েছে।

পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, কুষ্টিয়া জেলার খোকসা উপজেলার আমবাড়িয়া ইউনিয়নের আমবাড়িয়া গ্রামের মৃত আশরাফ আলী মন্ডল এর মেয়ের সাথে প্রায় চার বছর আগে মাগুরা জেলার শত্রুজিৎপুর ইউনিয়নের শত্রুজিৎপুর গ্রামের সিদ্দিক এর ছেলে মোহাম্মদ জামিরুলের বিয়ে হয়, তাদের সংসারে জিনিয়া নামের ২বছরের এক শিশু কন্যা রয়েছে। নিহত সুকিলার বড় ভাই আলী আকবর, মা সোয়েবা খাতুন জানান, বিয়ের পর থেকে সুকিলার স্বামী ও আমরা এ হত্যার সুষ্ঠ বিচার চাই। শ্বশুরবাড়ির লোকজন যৌতুকের দাবিতে প্রায় নির্যাতন করতো, গত পহেলা মে শনিবার জামিরুল ও বাড়ির অন্য সদস্যরা মিলে নির্যাতন করে মেরে ফেলেছে সুকিলাকে।

অন্যদিকে নিহত সুকিলার শ্বশুরবাড়ির লোকেরা যৌতুকের দাবি অস্বীকার করে বলেন, নিহত সুকিলা নিজেই স্বামীর উপর চড়াও হতো। ঘটনার দিন সে নিজে ঘরের আড়ার সাথে কাপড় পেঁচিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায, পরে তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য মাগুরা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখান থেকে তাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয় এবং পথেই তার মৃত্যু ঘটে।

পরে পুলিশে খবর দেওয়া হলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের নিকট তুলে দেয়।

এ ব্যাপারে মাগুরা সদর থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে, মামলা নং ৩৩/২০় তারিখ ২/৫/২০২০, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এ এস আই বিশ্বজিৎ বলেন, খবর পাওয়ার পর আমরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশে লাশের ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করি এ ব্যাপারে মাগুরা সদর থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে মামলাটি তদন্ত চলছে।