মনপুরায় শহররক্ষা বেড়ীবাঁধের উপর দিয়ে গড়িয়েছে মেঘনার পানি, আতঙ্কে এলাকাবাসী

সীমাস্ত হেলাল, মনপুরা (ভোলা) প্রতিনিধিঃ ভোলার মনপুরায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। সমুদ্রে সৃষ্ট লঘুচাপের প্রভাবে মেঘনার জোয়ারের পানি বেড়ে বন্যায় রূপ নিয়েছে। স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে মেঘনার পানি বেড়ে ১০ থেকে ১২ ফুট উপর দিয়ে গড়িয়েছে। বুধবার (১৯ আগস্ট) দুপুরের জোয়ারে উপজেলা শহররক্ষা বেড়ীবাঁধের উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়েছে। এতে আতঙ্কগ্রস্থ হয়ে পড়েছেন এলাকাবাসী।

নির্মানের ১৫ বছর পেরিয়ে গেলেও শহররক্ষা বেড়ীবাঁধটি একবারও মেরামত করা হয়নি। এই বেড়ীবাঁধের উপর দিয়ে বয়ে গেছে আইলা, নার্গিস, মহাসেন ও আম্পানের মতো শক্তিশালী প্রায় ১০ টি বন্যা ও ঘূর্ণিঝড়। বেড়ীবাঁধটি ভেঙ্গে গেলে তলিয়ে যাবে উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন দাপ্তরিক ভবন, ব্যাংক, মনপুরা থানা, বানিজ্যিক প্রাণকেন্দ্র হাজীরহাট বাজার সহ সরকারী বেসরকারী গুরুত্বপূর্ণ সব স্থাপনা। ডুবে গেছে বেড়ীবাঁধের বাইরে থাকা মসজিদ, দোকানপাট ও বসতবাড়ি।

এছাড়াও টানা ৪ দিনের বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়েছে নিম্মাঞ্চল। পানিবন্ধি হয়ে রয়েছেন হাজার হাজার মানুষ। বসত ঘরে পানি তলিয়ে রয়েছে অধিকাংশ বাড়ির রান্নাঘর। এতে রান্না করতে না পারায় খেয়ে না অর্ধাহারে অনাহরে দিনাতিপাত করছেন তারা।

পানিবন্ধি থাকার কারনে আমন রোপনের ভরা মৌসুমে জমি চাষাবাদ করতে পারছেন না কৃষকরা। সময়মতো আমন রোপন করতে না পারলে বড় ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হবেন তারা।

শহররক্ষা বেড়ীবাঁধের সংস্কার সম্পর্কে উপজেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ প্রকৌশলী মোঃ আবদুর রহমান বলেন, প্রতিবছরই শহররক্ষা বেড়ীবাঁধটির সংস্কারের জন্য কর্তৃপক্ষের বরাবর আবেদন করে আসছেন তারা। কিন্তু অজানা কারনে উপজেলার এই গুরুত্বপূর্ণ বেড়ীবাঁধটি সংস্কার হচ্ছে না।