ভোটার উপস্থিতি কম হওয়া রাজনীতির জন্য অশুভ

ঢাকা সিটি নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি নিয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতারা কেউ কেউ শংকা জানালেও অনেকে এর জন্য দায়ী করছেন, শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকাকে।

সম্প্রতি ঢাকার দুই সিটিতেই মেয়র পদে জয়ী হয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, কিন্তু তারপরও ক্ষমতাসীনদের কপালে চিন্তার ভাঁজ ভোটার উপস্থিতি নিয়ে।

যদিও তাদের কেউই বিষয়টিকে ভবিষ্যতে রাজনীতির জন্য খুব একটা সুখকর বলে মনে করছেন না। ফলে মানুষ কেন ভোটে আগ্রহ হারাচ্ছে, তা নিয়ে নিজেদের মধ্যেও চলছে নানা বিশ্লেষণ।

এমন পরিস্থিতির জন্য আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের কেউ কেউ বিএনপিকে দোষ দিলেও অনেকেই দায়ী করছেন নিজেদের।

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফরউল্লাহ বলছেন, যদি এটা বিএনপির ব্যার্থতা হয় তবে তো এটা আওয়ামী লীগে আরও বেশি ব্যার্থতা।

আওয়ামী লীগের যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ বলেন, এবারের ঢাকা সিটি নির্বাচনে বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের নেতারা শুরু থেকেই বলেছিল, তাঁরা এই নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে আন্দোলনের অংশ হিসেবে। এই নির্বাচনে জয় পরাজন নিয়ে তাঁদের কোন মাথাব্যাথা ছিল না বলেও জানান তিনি।

আগামীতে ভোটার উপস্থিতি বাড়াতে নানা কর্মপন্থা নিয়েও ভাবছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। খুঁজে বের করার চেষ্টা করছেন ঘাটতিগুলোও।

তবে এবারের সিটি নির্বাচনে বিএনপির কারচুপির অভিযোগ নাকচ করে তারা বলছেন এমন সুষ্ঠু নির্বাচন অতীতে বাংলাদেশে কখনই হয়নি।