ভৈরবে মৌমাছির চাক দেখার জন্যে দূর-দূরান্ত থেকে আসেন দর্শনার্থী

মৌমাছির কামড় আর উৎপাতের ভয়ে মানুষ যখন তটস্থ তখন, ভৈরব উপজেলার আগানগর ইউনিয়নের জগমোহনপুর গ্রামের হাজি আমীর উদ্দিনের বাড়ির সদস্যরা একটি নয় দুটি নয় পয়ত্রিশটি মৌমাছির চাক সামলাচ্ছেন বছরের পর বছর। আমীর উদ্দিনের দুইতলা বিশিষ্ট বাড়িটি দেখলে মনে হবে কোন নিপুণ হাতের কারুকার্য। তার বাড়িটি তৈরি করার পর থেকে একটি দুইটি করে মৌচাক বসতে থাকে। এমনি করে ৩৫টি মধুর চাকে বসবাস করছে মৌমাছিগুলো। দৃষ্টিনন্দন এই দৃশ্য দেখার জন্যে দূর-দূরান্ত থেকে আসেন দর্শনার্থী। বাড়ির মালিক চাঁক থেকে মধু সংগ্রহ করে পরিবারের খাবারের চাহিদা মিটিয়ে বিক্রি করছেন স্থানিয় বা জারেও।