ভৈরবে প্রতিবন্ধি গৃহবধুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার, স্বজনদের দাবী পরিকল্পিত হত্যা

জয়নাল আবেদীন রিটন, ভৈরব প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জের ভৈরবের কমলপুর মধ্য পাড়া এলাকার খন্দকারের বাড়ী থেকে প্রতিবন্ধি সুরিয়া বেগম (২৬) নামের দুই সন্তানের জননীর জুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহতের স্বজনদের দাবী মৃত স্বামীর ভাই, ভাবী বোনেরা তাকে সম্পদের লোভে হত্যা করে লাশ জানালার গ্রীলে সাথে ওড়না দিয়ে জুলিয়ে রেখেছে।

ঘটনার পর পর নিহতের ভাসুর দুই দেবর ৩ ননদ স্বপরিবারে পালিয়ে যায়। নিহতের পা ও কোমড় বিছানায় লাগানো ছিলো। খবর পেয়ে ভৈরব থানা পুলিশ রাত দশটায় লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। স্বজনরা জানায়, সোহাগের সম্পদের উপর দৃষ্টি পড়ে তার তিন ভাই বোন আর ভাইয়ের স্ত্রীদের।

চলতে থাকে সুরিয়ার উপর নানান নির্যাতন। আজ সকালেও বাড়ী থেকে বেড় হয়ে যাত্তয়ার জন্য বিভিন্ন ভাবে হুমকি প্রদান করে স্বামীর স্বজনরা। তারপরই খালি বাড়ীর জানালার গ্রীলের সাথে ওড়না দিয়ে ফাঁস লাগানো সুরিয়ার লাশ উদ্ধার করা হয়। ভৈরব থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শাহিন বলেন, আজ সন্ধা সময় কমলপুর মধ্যপাড়াস্থ খন্দকার বাড়ি থেকে সুরিয়া বেগমের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করি। লাশটি জানালার গ্রীলের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় ছিল।

আমরা লাশের সুরৎহাল করেছি। লাশের ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ মর্গে প্রেরণ করা হবে। এটি হত্যা না আত্মহত্যা ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর জানা যাবে । নিহতের পরিবারের লিখিত আবেদন এবং ময়না তদন্তের রিপোর্টের ভিত্তিতে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে ।