ভৈরবে জমি বিক্রি করে টাকা না দেয়ায় স্ত্রীকে হত্যা

জয়নাল আবেদীন রিটন , ভৈরব প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জের ভৈরবে জমি বিক্রি করে টাকা না দেওয়ায় ২ সন্তানের জননী আছমা বেগম নামে গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে।

হত্যার পর পরই স্বামী পালিয়ে গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে ভৈরবের শিমুলকান্দি গ্রামে । পুলিশ নিহতের মরদেহ উদ্ধার করেছে । স্বামী মোবারক স্থানীয় একটি স” মিলে শ্রমিকের কাজ করতো।

নিহতের বাবা আবদুর রশিদ ঢালী জানায় ১২ বছর আগে তার মেয়ের সাথে ভৈরবের শিমুলকান্দি মধ্যপাড়া গ্রামের আসাদ মিয়ার পুত্র মোবারকের সাথে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় বিয়ের পর তাদের ২টি সন্তান জন্ম নেয়।

কিন্ত গত ১ সপ্তাহ ধরে স্বামী মোবারক তার স্ত্রীকে নানা শশুরের জমি বিক্রি করে টাকা এনে দিতে চাপ দেয় । স্ত্রী ও এতে সম্মত দেয়। কিন্ত জমি বিক্রি করতে না পারায় স্বামীকে টাকা এনে দিতে পারেনি। এদিকে স্বামীর সন্দেহ স্ত্রী জমি বিক্রি করে টাকা আনলেও তাকে টাকা দিচ্ছেনা

এ নিয়ে স্বমী ও শশুর বাড়ির লোকজন নিহত আছমাকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করে আসছে। কিন্ত নির্যাতনের কথা আছমা তার বাবাকে ফোন করে শনিবার রাদে জানায়  কিন্ত শনিবার রাতে স্বামী ও স্ত্রীর মধ্যে পুনরায় টাকা নিয়ে কলহ হয়।

কলহের এক পর্যায়ে স্বামী তার স্ত্রীকে গলায় রশি পেচিঁয়ে হত্যা করে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ দুপুরে স্বামীর বাড়ি থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করেছে। নিহতের বাবা আবদুর রশীদ ঢালী ও তার ভাই শাহিন মিয়াসহ পরিবারের সদস্যরা আরো জানান. জমি বিক্রি করে টাকা এনে না দেয়ায় পরিকল্পিতভাবে আছমাকে তারা হত্যা করেছে।

তারা হত্যাকান্ডে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান । এ বিষয়ে ভৈরব থানার ওসি মোঃ শাহিন জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে হত্যাকান্ড ঘটেছে । তবে নিহতের পরিবার অভিযোগ জমি বিক্রি করে টাকা এনে না দেয়ায় স্বামী হত্যা করেছে । আমরা লাশের শরীরে আঘাতের চিহ্ন পেয়েছি। ঘটনার তদন্ত করছি লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ মর্গে প্রেরণ করা হবে ।