ভারতে নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৮

নাগরিকত্ব আইন নিয়ে উত্তাল ভারত। পুলিশের গুলিতে শিশুসহ এখন পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন ১৮ জন। এর মধ্যে বিজেপি শাষিত উত্তর প্রদেশেই নিহত ১৬ জন।

তবে পুলিশের দাবি তারা কোনো গুলি ছোঁড়েনি। যদিও নিহতদের মেডিকেল রিপোর্টে গুলিতে মৃত্যুর কথা বলা হয়েছে। এদিকে উত্তর প্রদেশে বিক্ষোভকারীদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে নিলামে তোলার প্রক্রিয়া শুরু করেছে যোগী আদিত্যনাথের সরকার। রাজ্যজুড়ে জারি রয়েছে ১৪৪ ধারা। আর ইন্টারনেট বন্ধ রয়েছে ভারতের বিভিন্ন শহরে। এখনো চলছে গণগ্রেপ্তার।

ভারতে নাগরিকত্ব আইনের বিক্ষোভ হয়েছে লন্ডনেও। আজ দিল্লির রাজঘাটে নাগরিকত্ব আইন বিরোধী সমাবেশে অংশ নেবেন রাহুল গান্ধী

এর আগে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে শুক্রবার (২০ ডিসেম্বর) জুমার নামাজের পর ভারতের উত্তর প্রদেশের বিভিন্ন জেলার বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। এ সময় বিক্ষোভকারীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুঁড়লে ও যানবাহনে আগুন ধরিয়ে দেয় বলে পুলিশ অভিযোগ করে। এসময় পুলিশের বেশ ক’জন সদস্যও আহত হন বলে জানায় তারা।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে উত্তর প্রদেশের ১৩ জেলায় বিক্ষোভ করা হয়েছে। এছাড়া দেশটির রাজধানী দিল্লিতেও জুমার নামাজের পর বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সম্প্রতি ভারতের সংসদে পাস হওয়া নতুন এ সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে যাওয়া হিন্দু, বৌদ্ধ, শিখ, জৈন, পারসিসহ অমুসলিম অবৈধ অভিবাসীদের ভারতে নাগরিকত্ব পাওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়েছে।