বড়াইগ্রামে ঋণের চাপে যুবকের আত্নহত্যা

সাজেদুর রহমান, নাটোর প্রতিনিধিঃ নাটোরের বড়াইগ্রামে করোনা মহামারির মধ্যেও অব্যহত ভাবে ঋণের কিস্তি পরিশোধের জন্য দেয়া চাপে সোমবার ভোরে নিজ বাড়িতে পিটার কস্তা (৪০) নামে এক যুবক গলায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যা করেছেন।

পিটার উপজেলার জোনাইল ইউনিয়নের পারবোর্ণী গ্রামের মৃত শিমন কস্তার ছেলে। পুলিশ ও স্থাণীয় সূত্রে জানা যায়, পিটার জোনাইল বাজার এলাকায় বিভিন্ন সুদি মহাজনের নিকট থেকে চড়া সুদে ঋণ নেয়। সর্বশেষ সাজেদুর রহমানের নিকট থেকেও ঋণ নেয়। এরপর সাজেদুর সম্প্রতি সুদাসলে প্রায় ১০ লাখ টাকা পরিশোধের জন্য চাপ সৃষ্টি করে।

এভাবে বিভিন্ন জনের নিকট থেকে তার মোট ঋণ দাড়ায় প্রায় ২৫ লাখ টাকা। এতো টাকা কিভাবে পরিশোধ করবেন এই নিয়ে ২-তিন দিন থেকে পিটার এলোমেলো আচরণ করতে থাকে। অবশেষে ভোররাতে নিজ বাড়ির গোয়াল ঘরে গিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যা করে। বড়াইগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দিলিপ কুমার দাস সাংবাদিকদের জানান, প্রাথমিক ভাবে জানা গেছে পিটার কস্তা ঋণের চাপে আত্নহত্যা করেছেন।

এঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য নাটোর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।