ব্লক করে দেয়া ৫টি অনলাইন নিউজ পোর্টাল খুলে দেয়ার দাবিতে ফতুল্লা মডেল প্রেসক্লাবের মানববন্ধন

সফিকুল ইসলাম জনি, ফতুল্লা প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জে অবৈধ পক্রিয়ায় বন্ধ করে দেয়া জনপ্রিয় ও শীর্ষ পাঁচটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল অবিলম্বে খুলে দেয়ার দাবিতে মানববন্ধন করেছে ফতুল্লা মডেল প্রেসক্লাব। বুধবার বিকেলে ফতুল্লার পঞ্চবটি মোড়ে সাংবাদিক ও পাঠকদের অংশ গ্রহনে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এসময় এমন হীন কাজের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান সংগঠনটির সাংবাদিকসহ পাঠকবৃন্দ।

সংগঠনের সভাপতি আনিছুজ্জামান অনুর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে ফতুল্লা মডেল প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদ আহম্মেদ বাধন, সহ সাধারণ সম্পাদক সহিদুল ইসলাম সহিদ, সাংগঠনিক সম্পাদক ও সময় নারায়ণগঞ্জের সম্পাদক মাহবুবুর রহমান খোকা, কার্যকরী সদস্য ও নারায়ণগঞ্জ টপ নিউজের সম্পাদক মহসিন আলম,সদস্য তুষার আহম্মেদ, সদস্য নাজমুল হোসেন আশিক, আব্দুল কাইয়ুম খান, দৈনিক শীতলক্ষ্যা পত্রিকার সাংবাদিক কামাল আহম্মেদ, সাংবাদিক রাসেল আহম্মেদ, নারায়ণগঞ্জ টুডে’র স্টাফ রিপোর্টার লিজা আক্তার, সোনালী আক্তার, প্রেস নারায়ণগঞ্জের চিফ রিপোর্টার সৌরভ হোসেন সিয়াম, আজকের নারায়ণগঞ্জের সাব্বির হোসেন, ফতুল্লা রিপোর্টার্স ক্লাবের সদস্য রাকিব চৌধুরী শিশির প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

অনলাইন নিউজ পোর্টালের পাঠকদের মধ্যে মির্জা রনি, রাকিব, নবী হোসেন,আক্তার হোসেন, অর্জুন মন্ডল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। মানববন্ধনে সঞ্চালনায় ছিলেন ফতুল্লা মডেল প্রেস ক্লাবের প্রচার সম্পাদক মোখলেসুর রহমান তোতা।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, গত ১৪ মে সন্ধ্যা থেকে নারায়ণগঞ্জের পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল সময় নারায়ণগঞ্জ ডটকম, যুগের চিন্তা ২৪ ডটকম, নিউজ নারায়ণগঞ্জ২৪ ডটনেট, প্রেস নারায়ণগঞ্জ ডটকম ও নারায়ণগঞ্জটুডের ওয়েবসাইট আনরিচেবল দেখাচ্ছিল। তখন ভাবা হচ্ছিল পোর্টাল গুলোর সার্ভার ডাউন হয়ে এমনটা হতে পারে। কিন্তু গত ২২ মে থেকে পোর্টালগুলো সম্পূর্ন রুপে ব্লক হয়ে যায়। এরপর জানা গেছে, একটি কুচক্রী মহল তাদের অপকর্ম ঢেকে রাখার লক্ষ্যে জেলার প্রথম সাড়ির ও মুক্ত চিন্তার এই নিউজ পোর্টালগুলো অবৈধ উপায়ে বন্ধ করে দিয়েছে। এটা মোটেও কাম্য নয়। এভাবে গণমাধ্যমে কুচক্রীদের কালো হাতের হস্তক্ষেপ বরদাস্ত করা হবে না। তাই অবিলম্বে পোর্টালগুলো খুলে দিতে হবে। এই দাবি শুধু গণমাধ্যম কর্মীদের নয়, এটা গণমানুষেরও দাবি।

বক্তারা আরো বলেন, এই নিউজ পোর্টালগুলো যদি রাষ্ট্র বা আইন বিরোধী কোন প্রচারণা চালিয়ে থাকে, তাহলে আইনী ব্যবস্থা কেন নেয়া হলো না? হুট করে বা কোন কিছু না জানিয়ে রাতের আঁধারে কেন বন্ধ করা হলো? এভাবে গণমাধ্যমের কণ্ঠ রোধ করে যারা নিজেদের অপকর্ম ঢেকে রাখার অপচেষ্টা চালাচ্ছেন, তারা বোকার স্বর্গে বাস করছেন। গণমাধ্যম বন্ধ করে নিজেদের অপকর্ম ঢেকে রাখার প্রচেষ্টা শাক দিয়ে মাছ ঢাকার মতই বৃথা। এই দেশে এক সাগর-রুনি হত্যা হলেও আরো অসংখ্য সাগর-রুনি তৈরী হয়েছে। কাজেই গণমাধ্যমে হস্তক্ষেপ না করে নিজেদের চরিত্রে পরিবর্তন আনুন। সমালোচনা সইতে না পারলে নিয়মতান্ত্রীক উপায়ে প্রতিবাদ জানান, যদি সৎ সাহস থেকে থাকে।

পরিশেষে সংগঠনের সভাপতি আনিছুজ্জামান অনু বলেন, অবিলম্বে এই পোর্টাল গুলো খুলে দেয়া না হলে সাংবাদিকদের পাশাপাশি পাঠকরাও দূর্বার আন্দোলণ গড়ে তুলতে বাধ্য হবে।