ব্যবসা-বাণিজ্যের নতুন দিগন্ত উন্মোচন করতে হবে: মেয়র লিটন

সৈয়দ মাসুদ, রাজশাহী প্রতিনিধিঃ রিয়েল এস্টেট এন্ড ডেভেলপার্স এ্যাসোসিয়েশন রাজশাহীর (রেডা) উদ্যোগে উদ্বোধন করা হয় ৪র্থ আবাসন মেলা-২০২১।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় নগর ভবনের গ্রিন প্লাজায় পাঁচ দিনব্যাপী এই মেলার উদ্বোধন করেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন।

মেলায় ৫৫টি প্রতিষ্ঠান স্টল দিয়েছে। মেলার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র বলেন, রাজশাহীতে দীর্ঘদিনেও শিল্পায়ন ও কলকারখানা হয়নি।

অর্থনৈতিক দিক দিয়ে এখনো পিছিয়ে আছে রাজশাহী। রাজশাহী কৃষিপ্রধান অঞ্চল। কৃষি পণ্যকে প্রাধান্য দিয়েও শিল্প-কলকারখানা করতে হবে।

রাজশাহী মহানগরীর পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া পদ্মা নদী পরিবেশগত দিক ছাড়া আমাদের কাজে আসছে না। পদ্মানদীকে বাণিজ্যিকভাবে কাজে লাগাতে হবে।

রাজশাহী থেকে ভারত পর্যন্ত নৌরুট অনুমোদিত হয়ে আছে। এখন নদীতে ক্যাপিটাল ড্রেজিং ও নৌবন্দর প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

তাহলে বাংলাদেশ ও ভারত যৌথ উদ্যোগে ব্যবসা-বাণিজ্যের নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হবে।

সকলের প্রচেষ্টায় রাজশাহীতে ব্যবসা-বাণিজ্যের নতুন দিগন্ত উন্মোচিত করতে হবে। ইতোমধ্যে রাজশাহীতে বিসিক শিল্পনগরী-২ এর ভূমি উন্নয়ন কাজ চলছে।

সেখানে প্রকৃত উদ্যোক্তাদের প্লট বরাদ্দ প্রদান করা হবে। শিক্ষানগরী রাজশাহীতে একটি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে আনতে চাই। সেই লক্ষ্যে কাজ করছি।

মেয়র আরো বলেন, রাজশাহীতে দৃশ্যমান উন্নয়ন হচ্ছে। তালাইমারি কাটাখালি সড়ক ৬ লেনে উন্নীত করা হবে। ভদ্রা মোড়

রেলক্রসিং থেকে পারিজাত লেক হয়ে নওদাপাড়া বাস টার্মিনাল পর্যন্ত এবং বন্ধগেট হতে সিটি হাট পর্যন্ত ফোরলেন রাস্তা নির্মাণ করা হবে।

আগামী দেড় থেকে দুই বছরের মধ্যেই এসব রাস্তা করা হবে। অনুষ্ঠানে বিল্ডিং কোড মেনে এবং বাড়ির সামনে রাস্তার জন্য পর্যন্ত জায়গা রেখে বহুতল ভবন নির্মাণের অনুরোধ জানান মেয়র।

অনুষ্ঠানে রেডার সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান কাজী বলেন,

রাজশাহীর অবকাঠামো উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করছে রিয়েল এস্টেট এন্ড ডেভেলপার্স এ্যাসোসিয়েশন।

রেডার সদস্যরা আবাসন খাতে এক হাজার ২০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছেন। আমাদের ১০৫টি আবাসন প্রকল্প চলমান আছে।

এ খাতে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে ২ লাখ জনবল কর্মরত আছে। রেডা সভাপতি তৌফিকুর রহমান লাভলুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মোঃ আনওয়ার হোসেন,

জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ রাজশাহী সার্কেল রাজশাহীর তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ও প্রকল্প পরিচালক মোঃ শামসুল আলম,

রাজশাহী চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মোঃ মনিরুজ্জামান মনি, রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (বোয়ালিয়া) তৌহিদুল আলম।