বোয়ালমারীতে বন্দুক যুদ্ধে এনায়েত ডাকাত নিহত

মোঃ ইলিয়ান, বোয়ালমারী (ফরিদপুর) প্রতিনিধি:  ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে পুলিশের সাথে বন্দুক যুদ্ধে এনায়েত ডাকাত নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় ওসিসহ তিনজন আহত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশীয় ওয়ান শুটার গান, শর্টগানের ৪টি কার্টুজ, একটি চাপাতি ও একটি চাইনিজ কুড়াল।

বোয়ালমারী থানা পুলিশ এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, বোয়ালমারী থানার ০৭ (০৯) ১৯ এবং ১২ (০৮) ১৯ নং মামলার ঘটনার সহিত জড়িত আসামি উপজেলার চতুল ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর গ্রামের মৃত মজিবর মোল্যার ছেলে কুখ্যাত ডাকাত এনায়েত মোল্যাকে (৪০) মঙ্গলবার রাত ১.৪৫ মিনিটে ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার হাটফাজিলপুর বাজার এলাকা থেকে গ্রেফতার করে হেফাজতে নেয়।

তার দেওয়া তথ্যমতে বুধবার ২.৩০ মিনিটে শেখর ইউনিয়নের বারাংকুলা গ্রামের প্রিয়নাথ পালের মেহগনি বাগানের অস্ত্র উদ্ধারে গেলে এনায়েতের দলের সহযোগিরা পুলিশকে লক্ষ করে এলোপাতাড়ি গুলি ছোড়ে। নিজেদের জান মাল ও সরকারি সমম্পত্তি অস্ত্র, গুলি রক্ষার্থে পুলিশ পাল্টা গুলি ছোড়ে। এ সময় এনায়েত দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে। লোকজন ছুটে আসতে থাকে। গুলাগুলি বন্ধ হলে টর্চের আলোয় আহত এণায়েতকে উদ্ধার করে বোয়ালমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জ্ঞানেন্দ্র নাথ তাকে মৃত ঘোষণা করে।

সকালে পুলিশ সুরতহাল শেষে ময়না তদন্তের জন্য লাশ ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরন করে। গোলাগুলিতে ওসি মো. আমিনুর রহমান, এসআই দিপংকর স্যানাল ও সাইফুদ্দিন আহত হয়। তাদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।
অপরদিকে এনায়েতের স্ত্রী মনিরা বেগম জানান, গত রোববার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. শহিদুল ইসলাম, এসআই সাইফুদ্দিন ও এসআই দিপংকর স্যানাল এনায়েতকে শৈলকুপা তাদের আত্মীয়দের বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে ২দিন নিখোঁজ রাখে।
অফিসার ইনচার্জ মো. আমিনুর রহমান বলেন, এনায়েতের বিরুদ্ধে বোয়ালমারী ও আশপাশের থানায় ১৩টি ডাকাতিসহ বিভিন্ন মামলা রয়েছে।