বোয়ালমারীতে দুই পরিবারের ১৫ জনকে অজ্ঞান করে ডাকাতি ঘটনা জড়িত সন্দেহে আটক-১

মোঃ ইলিয়াস মোল্যা, বোয়ালমারী (ফরিদপুর) প্রতিনিধি : ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলায় চেতনানাশক ওষুধ ছিটিয়ে দুই পরিবারের ১৫ জন সদস্যকে অজ্ঞান করে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ডাকাতের দল ঘরে থাকা দুই পরিবারের ২২ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ টাকা লুট করে নিয়ে গেছে। মঙ্গলবার (১০ নভেম্বর) রাত তিনটার দিকে বোয়ালমারী পৌরসদরের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের কামারগ্রাম সাহা বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগিরা প্রাথমিক ভাবে বাড়ি থেকে চিকিৎসা নিয়েছেন। তবে কে বা কারা চেতনানাশক ওষুধ ছিটিয়েছে বা খাইয়েছে সে ব্যাপারে কিছু জানতে পারেনি ভুক্তভোগীরা।
এ ঘটনায় মঙ্গলবার সকালে তামিম শেখ (২২) নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনাস্থল সহকারী পুলিশ সুপার (মধুখালী সার্কেল) মো. আনিসুজ্জামান পরিদর্শন করেছেন। পুলিশ ও ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা গেছে, বোয়ালমারী পৌরসদরের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের কামারগ্রামের সাধন কুমার সাহা ও রূপ কুমার সাহার পরিবারের সদস্যরা সোমবার সন্ধ্যা থেকে শারিরীক অসুস্থ্য ও বমি বমি ভাব অনুভব করছিলো। এক পর্যায়ে ঘরের কলাপসিবল গেট লাগিয়ে সবাই যার যার রুমে অবস্থান করে। রাতের খাবার না খেয়ে কোন এক সময় অজ্ঞান অবস্থায় পরিবারের সবাই ঘুমিয়ে পড়ে।
এরপর রাতের সুবিধাজনক সময়ে দুটি বাড়ির দরজা ভেঙে দুর্বৃত্তরা সাধন সাহার ঘর থেকে ২০ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, নগদ দেড় লক্ষাধিক টাকা ও সাধন সাহার প্রতিবেশী রূপ কুমার সাহার বাড়ি থেকে দুই ভরি স্বর্ণালঙ্কার, নগদ ২৮ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়। ভুক্তভোগী সাধন কুমার সাহা জানান, মঙ্গলবার রাত তিনটার দিকে হঠাৎ আমার ভাই সুমন্ত কুমার সাহার ঘুম ভাঙলে ঘরে আলমারিসহ সবকিছু এলোমেলো দেখে ডাকচিৎকার শুরু করে। এ সময় বাড়ির মেইন কলাপসিবল গেটের তালা ভাঙা ও ঘরে থাকা আলমারিগুলো ভাঙা অবস্থায় দেখতে পায়। সাধন কুমার সাহার প্রতিবেশী অপর ভুক্তভোগী রূপ কুমার সাহা বলেন, আমার ভাগনির জন্মদিন পালন শেষে কিভাবে সবাই ঘুমিয়ে পড়েছি বুঝতে পারিনি।
সকালে ঘুম থেকে ওঠে দেখি ঘরের দরজা ভাঙা ও ঘরে থাকা স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ টাকা নিয়ে গেছে ডাকাতরা। ঘটনাস্থল পরিদর্শনকারী বোয়ালমারী থানার ওসি (তদন্ত) আবুল খায়ের মিয়া জানান, সরেজমিন পরিদর্শন করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে কামারগ্রামের আলিম শেখে ছেলে তামিমকে আটক করা হয়েছে। অভিযান চলছে তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে তামিম দুর্ধর্ষ প্রকৃতির ছেলে। কিছুদিন আগে সে জেল থেকে ছাড়া পেয়েছে।