বেলকুচিতে ১১ মাসে ৯৯ টি বাল্য বিয়ে বন্ধ

পারভেজ আলী, বেলকুচি (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের আজগড়া জামতৈল গ্রামে

এক স্কুল ছাত্রীর বাল্যবিবাহ বন্ধ করেন ইউএনও আনিসুর রহমান। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আনিসুর রহমান দশম শ্রেনীর ছাত্রীকে বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা করেন।

এই নিয়ে তিনি গত ১১ মাসে বেলকুচি উপজেলার বিভিন্ন অঞ্চলের মোবাইল কোর্ট পরিচালনার মাধ্যমে ৯৯টি বাল্য বিবাহ বন্ধ করেন।

ইতিপূর্বে তিনি চৌহালী উপজেলায় কর্মরত থাকা অবস্থায় ৩৪ টি ও সিরাজগঞ্জ সদরে সহকারী কমিশনার (ভূমি) হিসাবে দায়িত্ব পালনকালে

আরো ২শ ১৬ টি বাল্য বিবাহ বন্ধ করেন। এনিয়ে তিনি মোট ৩শ ৪৯টি মেয়েকে অপ্রাপ্ত বয়সে বিয়ে হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করেছেন

বিষয়টি নিশ্চিত করেছে তার অফিস সহকারী হাফিজ উদ্দিন। এবিষয়ে বেলকুচি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আনিসুর রহমান সময়ের আলোকে জানান,

আমি বরাবর চেষ্টা করে আসছি যাতে অল্প বয়সে কোন মেয়ের বিয়ে না হয়। কারণ আমি জানি বাল্য বিবাহ কতো ভয়াবহ

করে তুলতে পারে একটা অল্প বয়সের মেয়ের জীবনকে। শুধু তাই নয় বাল্য বিবাহ বন্ধ করতে আমি বিভিন্ন সভা সেমিনারেও আলোচনা করে আসছি।

যাতে কেউ যেন তার মেয়েকে অল্প বয়সে বিয়ে না দেয় সে ব্যাপারে জনপ্রতিনিধি ও সাধারণ মানুষ আমাকে সহযোগিতা করে আসছে।

আমি মনে করি সকলেই যদি বাল্যবিবাহের কুফল সম্পর্কে জানতে পারে তবে একদিন এই অঞ্চল শুধু নয় সারাদেশই বাল্য বিবাহ মুক্ত হবে ।