বৃষ্টি-ঝড়ো হাওয়ায় দশমিনায় আশ্রয় কেন্দ্রে ছুটছে মানুষ

সঞ্জয় ব্যানার্জী, দশমিনা-বাফল প্রতিনিধি: ঘূর্ণিঝড় আমফান এর প্রভাবে পটুয়াখালী দশমিনা উপকূলে হালকা বৃষ্টি সঙ্গে বইছে ঝড়ো হাওয়া। মঙ্গলবার রাত থেকে আবহাওয়া খারাপ হতে শুরু করায় উপকূলীয় এলাকার মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে ছুটতে শুরু করেছেন মানুষ ।

নদ-নদীগুললোতে জোয়ারের পানি স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি প্রবাহিত হচ্ছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোসাঃ তানিয়া ফেরদৌসসহ বিভিন্ন কর্মকর্তা উপজেলার বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেন এখন আশ্রায় কেন্দ্রে আশ্রিতাদের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মো. রবিউল ইসলাম জানান, বাতাসের তীব্রতার সাথে সাথে বৃষ্টিও বেড়ে যাওয়ায় আশ্রয় কেন্দ্রে যেতে শুরু করেছে মানুষ। ক্ষতি এড়াতে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকার মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে নিতে সিপিপির১১৯৫ সদস্যের টিম মাঠে কাজ করে যাচ্ছে। মানুষকে নিরাপদে সরিয়ে নিতে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে বলেও জানান তিনি।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার দুপুরের পর থেকে আকাশে কালো মেঘ দেখে উপজেলার লোকজন নিকটস্থ আশ্রয়কেন্দ্রের দিকে যেতে শুরু করে। বিশেষ করে চরহাদী, পাতার চরসহ সাইক্লোন শেল্টারগুলোতে লোকজন নিজেদের জান মাল রক্ষার্থে নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্রে পৌঁছাতে শুরু করে। উপজেলায় বসবাসকারী মানুষের মধ্যে এখনও আতঙ্ক বিরাজ করছে। কারণ নদীতে দেড় থেকে দুই ফুট পানি বেড়েছে। বেড়ি বাঁধ ভাঙন ও বিপর্যয়ের আশঙ্কা করছেন।