বিমানবন্দরে পরিত্যক্ত ১২ উড়োজাহাজ উঠবে নিলামে

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে গলার কাটা হয়ে পড়ে থাকা ১২টি উড়োজাহাজ সরাতে এবার আইনি পদক্ষেপ নিচ্ছে সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ। এর অংশ হিসেবে এগুলোর রেজিস্ট্রেশন বাতিল করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট এয়ারলাইন্সগুলোকে সময় বেধে দিয়ে নোটিশ করবে তারা। এরপরও না সরালে নিলামে বিক্রি করে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন সিভিল এভিয়েশন চেয়ারম্যান।

তৃতীয় টার্মিনাল নির্মাণকে কেন্দ্র করে কর্মযজ্ঞ শুরু হয়েছে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এলাকায়। এই কাজে বিঘ্ন সৃষ্টি করছে চারটি এয়ারলাইন্সের ১২টি পরিত্যক্ত উড়োজাহাজ। এরমধ্যে রয়েছে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের আটটি, জিএমজি এয়ারলাইন্সের একটি, রিজেন্ট এয়ারওয়েজের দুটি, অ্যাভিয়েনা এয়ারলাইন্সের একটি উড়োজাহাজ। দুই থেকে আট বছর পর্যন্ত এগুলো পড়ে আছে বিমানবন্দরে। ফলে ভাড়া বাবাদ প্রায় ৮শ’ কোটি টাকা পাওনা সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ।

তৃতীয় টার্মিনাল নির্মাণ কাজের জন্য বিমানবন্দরের বিভিন্ন জায়গায় পরিবর্তন আনা হচ্ছে। মূল পার্কিং জোনে আমদানি-রফতানির মালামাল উঠা-নামা করায় যাত্রীবাহী উড়োজাহাজগুলো রাখার জায়গার সংকট দেখা দিয়েছে।

এ অবস্থায় কার্গো ভিলেজের সামনের জায়গা খালি করতে আরো উত্তরে সরিয়ে নেয়া হয়েছে পরিত্যক্ত উড়োজাহাজগুলো। বিমানবন্দর থেকে একেবারে সরিয়ে ফেলতে এগুলোর রেজিস্ট্রেশন বাতিল করেছে সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ। এখন আইনি নোটিশ দেয়ার প্রস্তুতি চলছে।

সংশ্লিষ্ট এয়ারলাইন্সগুলো এসব উড়োজাহাজ বিমানবন্দর থেকে সরিয়ে না নিলে নিলামে বিক্রি করা হবে বলেও জানান তিনি।