বাসে তুলে ধর্ষণের ঘটনায় আরও দুইজনকে আটক

মোঃ রাশেদ, চট্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ  নগরের বায়েজিদ থানার অক্সিজেন মোড় এলাকায় জোরপূর্বক পার্কিং করা বাসে তুলে একটি প্রতিষ্ঠানের নারী শ্রমিককে ধর্ষণের ঘটনায় আরও দুইজনকে আটক করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

বৃহস্পতিবার (১১ জুন) এই দুইজনকে আটকের বিষয়টি জানানো হয় র‍্যাবের পক্ষ থেকে।

আটক দুইজন হলো- ফটিকছড়ির নারায়নহাট এলাকার আবদুর রহিমের ছেলে মো. শাহাজাহান (২০) ও রাউজানের নদীমপুর এলাকার মো. বেলাল উদ্দিনের ছেলে মো. মিজান (১৯)।

আটক দুইজন ওই নারী শ্রমিককে ধর্ষণে সহায়তাকারী বলে জানিয়েছে র‍্যাব।

র‍্যাব-৭ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. মাহমুদুল হাসান মামুন বলেন, বায়েজিদ থানার অক্সিজেন মোড় এলাকায় জোরপূর্বক বাসে তুলে একটি প্রতিষ্ঠানের শ্রমিককে ধর্ষণের ঘটনায় আরও দুইজনকে আটক করা হয়েছে। তারা ধর্ষণে সহায়তাকারী। তাদের বায়েজিদ থানায় হস্তাস্তর করা হয়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার (০৯ জুন) দুপুরে নগরের বায়েজিদ থানার শহিদনগর এলাকায় অভিযান চালিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় মূল অভিযুক্ত মো. ইসমাইল (৩২) নামে একজনকে আটক করে র‍্যাব।

আটক মো. ইসমাইল বায়েজিদ থানার শহিদনগর এলাকার নুর ইসলাম সর্দারের বাড়ির মো. আবু তাহেরের ছেলে। তার বিরুদ্ধে বায়েজিদ থানায় দুইটি মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছে র‍্যাব।

র‍্যাব-৭ এর সহকারী পুলিশ সুপার কাজী মোহাম্মদ তারেক আজিজ বলেন, ৭ জুন সকালে কর্মস্থলে যেতে অক্সিজেন মোড়ে অপেক্ষা করছিলো ওই নারী শ্রমিক। বৃষ্টির কারণে সে সড়কের পাশে দাঁড়িয়ে ছিলো।

এ সময় ইসমাইল ও তার এক সহযোগী ওই নারীকে জোরপূর্বক রাস্তার পাশে পার্কিং করা একটি বাসে তুলে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে তার কাছ থেকে মোবাইল, টাকা ছিনিয়ে নিয়ে ঘটনা কাউকে না জানাতে হুমকি দেয়। মেয়েটি ওইদিন ভয়ে কাউকে এই ঘটনা জানায়নি। থানায়ও কোনো অভিযোগ করেনি।

কাজী মোহাম্মদ তারেক আজিজ বলেন, ওই নারী সোমবার (৮ জুন) র‍্যাব-৭ কার্যালয়ে এসে লিখিত অভিযোগ দেয়। পরে র‍্যাব অভিযানে নেমে ইসমাইলকে আটক করতে সক্ষম হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ইসমাইল ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে।