বান্দরবানে সন্ত্রাসীর গুলিতে ইউপি সদস্য নিহত

রানা মারমা, বান্দরবান প্রতিনিধি: বান্দরবানে পাহাড়ী সন্ত্রাসীদের গুলিতে ২নং কুহালং ইউনিয়নের এক ইউপি সদস্য ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা নিহত হয়েছে। সোমবার (১৫জুন) রাতে কুহালং ইউনিয়নের বাকিছড়া এলাকার মাঝের পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম চাইন ছাহ্লা মারমা (৩৬)।
সে ২নং কুহালং ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য। স্থানীয়রা জানায়, ৫নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য চাইন ছাহ্লা মারমাকে (৩৬) সন্ত্রাসীরা গুলি করলে আহত অবস্থায় প্রথমে বান্দরবান সদর হাসপাতাল পরে অবস্থার অবনতি হলে চট্টগ্রামে হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। এদিকে গোলাগুলির ঘটনার পরপরই ওই এলাকায় সেনাবাহিনী  ও পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।
কুহালং ইউপি চেয়ারম্যান সানাপ্রু মারমা বলেন,সন্ধ্যার কিছুক্ষণ পর পরই ছড়া লামার পাড়ার বাসিন্দা মংউসে মারমা বাসা থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে গুলি করে সন্ত্রাসীরা। পায়ের উপরের অংশে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় প্রথমে বান্দরবান সদর হাসপাতালে পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে মেম্বার মারা যান। এখনো অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী কে বা কারা জানা যায়নি।
বান্দরবান সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শহীদুল ইসলাম জানিয়েছেন, ইউপি সদস্য চাইন ছাহ্লাকে বাকি ছড়া লামার পাড়ার বাসিন্দা মংউসে মারমা বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। পড়ে অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা তাকে গুলি করলে ইউপি সদস্য গুরুতর আহত হয়।
স্থানীয়রা গুরুতর আহত ইউপি সদস্যকে উদ্ধার করে প্রথমে বান্দরবান সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে সেখান থেকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর সেখানে সে মারা যায়। তবে কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।