বাঞ্ছারামপুরে ছাত্রলীগ নেতার নিজ উদ্যোগ ও অর্থায়নে ৮০০ পরিবারকে চাল ও মাস্ক বিতরণ

মোঃ ফয়সাল আহাম্মেদ, বাঞ্ছারামপুর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধিঃ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ নেতা উপ-ত্রান ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা সম্পাদক ফয়সাল হক তার নিজ উদ্যোগ ও তার বাবার অর্থায়নে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার ভিটিঝগড়ারচর,দুর্গারামপুর,দড়িয়াদৌলত,আছাদনগর গ্রামের ৮শত পরিবারকে ১০ কেজি করে চাল ও সচেতনতার জন্য মাস্ক বিতরন করেন। বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ এর কারণে লকডাউনে থাকা কর্মহীন দিনমজুর, ভ্যন চালক,রিক্সা চালক, ভিক্ষুক, চায়ের দোকানদার, রেস্টুরেন্ট শ্রমিক, ফেরিওয়ালা, পরিবহন শ্রমিক এবং অসহায় পরিবারের মাঝে মাস্ক ও চাল বিতরণ করেন জাবি ছাত্রলীগ নেতা মো.ফয়সাল হক। তার বাবা সবেক আওয়ামীলীগ নেতা হাজী মোহাম্মদ ফজলুল হক, যার অনুপ্রেরণা ও আর্থিক সহায়তায় ৮শত গরীব ও অসহায় পরিবারের মাঝে চাল ও মাস্ক বিতরণ করার মাধ্যমে ছাত্রলীগের এই কর্মসূচি বাস্তবায়িত হয়। পৌর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ ইদন মিয়া, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক মোঃ আলমগীর হোসেন,উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার জুয়েল আহমেদ, সাংবাদিক মো.আলমগীর হোসেন সহ আন্যান্য নেতা কর্মীদের নিয়ে এই কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হয়। উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি বলেন- ফয়সাল তার নিজ উদ্যোগে এবং তার বাবার আর্থিক সহায়তায় “করোনা” ভাইরাস জনিত কারণে অসহায় ও গরীবদের মাঝে এইরকম সাহায্যকে স্বাগত জানান এবং সবাইকে এভাবে এগিয়ে আসার আহবান জানাই। জাবি ছাত্রলীগ এই নেতা জানান-জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নিজ হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ মানবিক বিপর্যয় ও দূর্যোগকালীন সময়ে অগ্রনী ভূমিকা পালন করে আসছে।” করোনা” ভাইরাস এর কারনে সারা বাংলাদেশে লকডাউন হয়ে পড়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ ছাত্রলীগের নির্দেশে বাংলাদেশের প্রত্যেক জায়গায় ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা সাহায্য করছে। আর আমি একজন ছাত্রলীগের কর্মী হিসেবে অসহায় ও গরীবদের মাঝে এই সাহায্য করতে পেরে আমার খুব ভাল লাগছে আর এ মূহুর্তে তাদের পাশে থাকা আমার এবং সকল ছাত্রলীগ কর্মীর দায়িত্ব। তিনি আরো বলেন- সকলের উচিত সরকারের নির্দেশনা মেনে চলা এবং সচেতন হিসেবে নিজ ঘরে অবস্থান করা। অসহায় ও গরীবদের পাশে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা আছে ও থাকবে এবং যে কোন প্রয়োজনে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা এগিয়ে আসবে।