বাগেরহাটে স্কুল শিক্ষিকা’র আত্মহত্যার ঘটনায় এক সুদেকারবারিকে আটক করেছে পুলিশ

মাহফুজুর রহমান বাপ্পী, বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধি: বাগেরহাটের চিতলমারীতে সুদখোরদের নির্মম অত্যাচার-নির্যাতনে স্কুল শিক্ষিকা হাসিকনা বিশ্বাসের আত্মহত্যার ঘটনায় রেফাজুল খান (৩৮) নামে এক সুদেকারবারিকে পুলিশ আটক করেছে।

শুক্রবার রাতে অভিযান চালিয়ে চিতলমারী উপজেলার খড়মখালী এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। আটককৃত রেফাজুল খান আড়–য়াবর্নী গ্রামের মোস্তাক খানের ছেলে ও উপজেলায় ‘হিটলিস্টে’ থাকা সুদেকারবারিদের মধ্যে অন্যতম। শনিবার সকালে আটককৃতকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। চিতলমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর শরিফুল হক জানান, সুদিকারবারীদের তিরস্কার-গালিগালাজ ও অত্যাচার-নির্যাতন সহ্য না করতে পেরে সোমবার (২০ জুলাই) দুপুরে নিজ বসত ঘরের আড়ার সাথে গলায় রশি লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন হাসিকনা বিশ্বাস।

নিহত হাসিকনা বিশ্বাস উপজেলার দক্ষিন শিবপুর মধ্যপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা এবং খড়মখালি গ্রামের যুগল কান্তি ডাকুয়ার স্ত্রী। মৃত্যুর দুই দিন পরে বুধবার (২২ জুলাই) হাসিকনার স্বামী যুগল কান্তি ডাকুয়া বাদী হয়ে ৮ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও কয়েকজনকে আসামী করে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে চিতলমারী থানায় এই মামলা দায়ের করেন। এরপর থেকে পুলিশ আসামীদের ধরতে অভিযানে নামে।

শুক্রবার রাতে খড়মখালী এলাকা থেকে অজ্ঞাত আসামীদের মধ্য রেফাজুল খানকে আটক করা হয়। আটককৃত রেফাজুল খান আড়–য়াবর্নী গ্রামের মোস্তাক খানের ছেলে ও উপজেলায় ‘হিটলিস্টে’ থাকা সুদেকারবারিদের মধ্যে অন্যতম। শনিবার সকালে আটককৃতকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। ওসি আরো জানান, চিতলমারীতে সুদের ব্যবসা বন্ধ ও মাদকমুক্ত করতে পুলিশের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।