বাগেরহাটে ছাত্রলীগের সভাপতি সহ আরও সাতজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত

মাহফুজুর রহমান বাপ্পী, বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধি: বাগেরহাট জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. মনির হোসেন সহ নতুন করে আরও সাতজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। রবিবার (২৮ জুন) যশোরের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পিসিআর ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় ছাত্রলীগের সভাপতিসহ সাতজনের শরীরে করোনা ভাইরাস সনাক্ত হয়।

গত ২৫ জুন এই সন্দেহভাজন রোগীদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পিসিআর ল্যাবে পাঠায় স্বাস্থ্য বিভাগ। সোমবার দুপুরে স্ব স্ব এলাকার আক্রান্তদের বাড়ি অবরুদ্ধ করে লাল পতাকা টাঙিয়ে দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। আক্রান্তদের মধ্যে বাগেরহাট সদর উপজেলায় একজন, মোংলাতে দুইজন এবং চিতলমারীতে চার জন রয়েছেন। এই নিয়ে বাগেরহাট জেলায় মোট ১৯৪ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হল। এর মধ্যে ৭১ জন সুস্থ হয়েছেন।

বাগেরহাট জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সরদার নাহিয়ান আল সুলতান ওশান জানান, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. মনির হোসেন বাগেরহাটের মানুষকে সচেতন করা, কৃষকের মাঠের পাকা বোরো ধান কেটে ঘরে তুলে দেয়া সহ নানা সেবামূলক কাজ করতে মাঠে ছিলেন। সোমবার নমুনা পরীক্ষায় তার শরীরে করোনা পজিটিভ আসায় তাকে বাড়িতে অবরুদ্ধ করা হয়েছে। তবে তার শরীরে করোনা ভাইরাসের কোন উপসর্গ নেই।

আগামী ১৪দিন তিনি দলের নেতাকর্মীদের সাথে যোগাযোগ না রেখে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকবেন। খুব শিগগির সুস্থ হয়ে তিনি আবারও আমাদের মাঝে ফিরবেন সেই কামনা করছি। বাগেরহাটের সিভিল সার্জন কার্যালয়ের চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. সুব্রত দাস জানান, রবিবার যশোরের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পিসিআর ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মনির হোসেনসহ আরও সাতজনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।

গত ২৫ জুন সন্দেহভাজন এই রোগীদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য যশোর ল্যাবে পাঠানো হয়। সোমবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত স্ব স্ব এলাকার আক্রান্তদের বাড়ি অবরুদ্ধ করে লাল পতাকা টাঙিয়ে দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। আক্রান্তদের শরীরে করোনার উপসর্গ না থাকায় তাদের বাড়িতে রেখে চিকিৎসা দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। আক্রান্তরা সবাই সুস্থ স্বাভাবিক রয়েছেন। এই নিয়ে বাগেরহাট জেলায় শিশু ও নারীসহ মোট ১৯৪ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস সনাক্ত হল। এর মধ্যে ৭১ জন সম্পূর্ণ সুস্থ হয়েছেন।