বাগাতিপাড়ায় সরকারি আইন অমান্য করে প্রাথমিক শিক্ষকদের সাব ক্লাস্টার প্রশিক্ষণ

সাজেদুর রহমান, নাটোর প্রতিনিধিঃ  লেখা রয়েছে করোনা প্রতিরোধ ও করণীয়, কিন্তু বাস্তবে এটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের নিয়ে সাব ক্লাস্টার প্রশিক্ষণ। কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে দেশের সমস্ত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ রয়েছে আগামী ৬আগষ্ট পর্যন্ত।

পরবর্তী নির্দেশনা না আসা পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের ক্লাসে পাঠদান ও শিক্ষকদের প্রশিক্ষণে রয়েছে বাধানিষেধ। অথচ নাটোরের বাগাতিপাড়ায় প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মজনু মিয়ার সরাসরি তত্ত্বাবধানে সরকারি বিধি নিষেধ উপেক্ষা করে সাব ক্লাস্টার প্রশিক্ষন হয়েছে। একই দিনে উপজেলার জামনগর, রহিমানপুর, বাশঁবাড়িয়া, জয়ন্তীপুর ও চাঁদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সাব ক্লাস্টার প্রশিক্ষন অনুষ্ঠিত হয়।

মঙ্গলবার (৭জুলাই) বাঁশবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি শ্রেণিকক্ষে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের বিষয়টি গণমাধ্যম কর্মীদের নজরে আসে। কি বিষয়ে প্রশিক্ষণ চলছে এমন প্রশ্নে প্রশিক্ষকের দায়িত্বে থাকা সহকারী শিক্ষক সুজা উদ্দৌলা সুজা দাবি করেন, করোনা বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি করতেই শিক্ষকদের নিয়ে প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়েছে।

করোনার দোহাই দিয়ে সাব ক্লাস্টার প্রশিক্ষণকে আড়াল করতেই এমনটা করা হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নে অগোছালো উত্তর দেন তিনি। বর্তমান সময়ে শিক্ষকদের নিয়ে সরকারি বিধি উপেক্ষা করে সাব ক্লাস্টার প্রশিক্ষণ করানোর দায় স্বীকার করে  বাগাতিপাড়া উপজেলা শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত)  মজনু মিয়া বলেন, বর্তমান চলমান সময় এভাবে প্রশিক্ষণের আয়োজন করাটা কোনভাবেই ঠিক হয়নি।

এঘটনায় জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এরশাদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, আমি বিষয়টি আগে থেকে জানতামনা। বর্তমানের এই বৈশ্বিক মহামারীর সময়ে বাগাতিপাড়া উপজেলা শিক্ষা অফিসার মজনু মিয়া সাব ক্লাস্টার  প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করে সরকারি আদেশ অমান্য করেছেন।  তাই  তাকে শোকোজ করা হবে বলে জানান তিনি।