বাংলাদেশের বিপক্ষে অর্থাভাবে টেস্ট বাতিল করলো আয়ারল্যান্ড

২০১৭ সালেই টেস্ট স্ট্যাটাস পেল আয়ারল্যান্ড। তবে দু’বছরের মাথায় এই ফরম্যাটে খেলতে অনীহা প্রকাশ করছে দেশটি। টেস্টের পরিবর্তে বাংলাদেশের বিপক্ষে সীমিত ওভারের ম্যাচ খেলতে চায় আইরিশরা। অন্য কোনো কারণে নয়, আর্থিক সমস্যার কারণেই বাংলাদেশের বিপক্ষে ২০২০ সালের মে মাসে একমাত্র টেস্টটি বাতিল করেছে আইরিশরা।

আয়ারল্যান্ডের টেস্ট বাতিলের খবর নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী। তিনি বলেন, টেস্ট বাতিলের ব্যাপারে বিসিবিকে আগেই অবহিত করেছিল তারা, এটা আমাদের আগেই জানিয়েছিল। টেস্টের জায়গায় আয়ারল্যান্ড সীমিত ওভারের ক্রিকেট খেলতে আগ্রহ জানিয়েছে।

বাংলাদেশের বিপক্ষে একটি টেস্টের জন্য আয়ারল্যান্ডের ব্যয় হতো ১.১৪ মিলিয়ন ইউএস ডলার। টেস্ট আয়োজনে স্পন্সর না থাকায় এই পরিমাণ টাকা খরচ করা সামর্থ্যের বাইরে মনে করছে নতুন টেস্ট খেলুড়ে দেশটি।

আয়ারল্যান্ডের ক্রিকেট প্রধান নির্বাহী ওয়ারেন ডিউট্রোম টেস্ট আয়োজন করতে না পারায় দুঃখ প্রকাশ করে বার্তা দিয়েছেন, সব টেস্ট খেলুড়ে দেশের মতো আমরাও ক্রিকেটের সব সংস্করণে খেলতে চাই। কিন্তু দুর্ভাগজনকভাবে আর্থিক সীমাবদ্ধতার কারণে আমরা টেস্ট আয়োজন করতে পারছি না।

অর্থাভাবে শুধু বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচ নয়, আফগানিস্তানের বিপক্ষে নির্ধারিত টি-টোয়েন্টি সিরিজ আয়োজন থেকেও সরে এসেছে আয়ারল্যান্ড। যেখানে বাংলাদেশ, নিউজিল্যান্ড ও পাকিস্তানের বিপক্ষে রঙিন পোশাকে সিরিজ খেলবে আয়ারল্যান্ড।