বাংলাদেশের উপকূলে আঘাত হেনেছে আম্পান

ঘূর্ণিঝড় আম্পান বিকেল ৪টায় বাংলাদেশের উপকূলে আঘাত হেনেছে। এই সময়ে উপকূল অতিক্রম শুরু করে ঘূর্ণিঝড়টি। রাত ৮টার মধ্যে সাগর আইল্যান্ডের পূর্বদিক দিয়ে পশ্চিমবঙ্গ- বাংলাদেশ অতিক্রম করবে। উপকূল অতিক্রমের সময় বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় ১৬০ কিলোমিটার রয়েছে, এটি ধীরে ধীরে কমবে।

এখনো জলোচ্ছ্বাসের শঙ্কা, ঘুর্ণিঝড়ের আগানোর গতি এখন ঘণ্টায় ২০ কিলোমিটারের কম। বুধবার (২০ মে) বিকেলে ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানিয়েছেন, আবহাওয়া অধিদফতরের পরিচালক সামসুদ্দিন আহমেদ।

এর আগে আম্পানের সর্বশেষ তথ্য জানিয়ে বুধবার (২০ মে) বেলা সাড়ে ৪টায় বিজ্ঞপ্তি দিয়েছিল আবহাওয়া অধিদপ্তর। আম্পান বর্তমানে উত্তরপশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন উত্তরপূর্ব বঙ্গোপসাগর এবং পশ্চিমমধ্য বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থান করছে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

ঘূর্ণিঝড় জনিত জলোচ্ছ্বাসের সতর্কতা
ঘূর্ণিঝড় এবং দ্বিতীয় পক্ষের চাদের সময়ের শেষ দিনের প্রভাবে উপকূলীয় জেলা সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, লক্ষীপুর, চাদপুর, নোয়াখালী, ফেনী ও চট্টগ্রাম এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহের নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ১০-১৫ ফুট অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে।