বরিশালে আমন বীজতলা তৈরি করে স্বপ্ন বুনতে ব্যস্ত কৃষক

প্রিন্স তালুকদার, বরিশাল প্রতিনিধি: বরিশাল বিভাগের ভোলা জেলার চরফ্যাসন উপজেলার রোপা-আমন ধান চাষের লক্ষ্যে বীজতলা তৈরি করে স্বপ্ন বুনতে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকরা। চলতি মৌসুমে আষাঢ়ে প্রচুর বৃষ্টিপাত হওয়ায় বীজতলা তৈরিতে হিমশিম খাচ্ছে কৃষক, তারপরেও বীজতলা তৈরিতে বাড়ছে কৃষকদের ব্যস্ততা।

প্রাথমিকভাবে কৃষকরা আমনের জমিতে আইল বাঁধা আইলের সাইড কেটে জমিকে বীজতলার উপযোগী করে তুলছে। পুরো উপজেলাজুড়ে এখন এমনি চিত্র চোখে পড়ছে। জানা যায়, এ বছরে এই অঞ্চলে বোরো ধানের চাষের ফলন তেমন ভালো হয়নি। শুধু প্রকৃতির উপর নির্ভর করে বর্ষা মৌসুমে বৃষ্টির পানিতে রোপা আমন ধানের চাষ করে থাকে।

কিন্তু চলতি মৌসুমে বেশি বৃষ্টিপাত হওয়াতে আমন ধানের বীজতলায় সমস্যা হওয়ার কারনে অনেক চাষী হতাশ হয়েছেন। সরেজমিনে উপজেলার চরমানিকা, দক্ষিন আইচা, নীলকমল, আহাম্মদপুর, আব্দুল্লাহপুর ও মুজিবনগর এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, কৃষকরা রোপা আমন ধান চাষের জন্য পূর্ব প্রস্ততি হিসেবে বীজতলা তৈরী ও ধান চাষের জমি প্রস্তুত করছেন। এসময় শত ব্যস্ততা দেখেও কথা বলতে চাইলে উপজেলার ধান চাষী মোঃ হাকিম প্রতিবেদক কে বলেন, এ বছরে প্রচুর বৃষ্টি হওয়ার কারনে পানি থাকায় বীজতলা তৈরিতে বিলম্ব হচ্ছে।

শ্রাবণ মাসের শেষে জমিতে আমন ধান রোপন শুরু হয়। ধানচাষী চরযমুনা গ্রামের মোঃ কামাল বলেন,এখনো বৃষ্টি হওয়ার কারনে জমিতে বীজ বপন করার পর পানি জমে যাচ্ছে। এতে করে বীজতলায় ছিটানো নষ্ট হয়ে যেতে পারে। আমরা কৃষি অফিস থেকে কোন ধরনের বীজ পাইনি। চরফ্যাসন উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা মো: আবু হাসনাইন বলেন, চলতি আমন মৌসুমে এবার ৭০ হাজার হেক্টর জমিতে আমন ধান আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নেয়া হয়েছে। এ বছর আষাঢ় মাসে প্রচুর বৃষ্টিপাত হওয়ায় বীজতলা তৈরিতে কৃষকের একটু সমস্যা হলেও চলতি মৌসুমে রোপা আমন ধান চাষের লক্ষমাত্রা পুরণ হবে বলে তিনি এ আশাবাদ ব্যক্ত করছেন।