বগুড়ায় অধ্যক্ষ নজবুল হক করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন

বগুড়া প্রতিনিধি: সাবেক প্রাদেশিক পরিষদের এমএলএ মরহুম সৈয়দ আহম্মদের ২য় পুত্র ও বগুড়ার সোনাতলা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এবং বগুড়ার সৈয়দ আহম্মদ কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ নজবুল হক (৭৪) শুক্রবার বিকাল ৫টায় ঢাকার একটি হাসপাতালে করোনায় আক্রান্ত হয়ে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক কন্যা ও দুই ছেলেসহ অসংখ্য আত্মীয়স্বজন রেখে গেছেন। তার মৃত্যুর সংবাদ এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে শোকের ছায়া নেমে আসে। সেই সাথে তার সম্মানে এলাকার ব্যবসায়ীরা দোকানপাট বন্ধ করে ফেলে। নজিবুল হক রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গণিত বিষয়ে ১৯৬৮ সালে বিএসসি (অনার্স) এবং ১৯৬৯ সালে এমএসসি ডিগ্রী অর্জন করেন। তিনি ১৯৭১ সালের ১২ জানুয়ারি সৈয়দ আহম্মদ কলেজে অধ্যক্ষ হিসেবে যোগদান করেন।

গ্রামের খেটে খাওয়া মানুষের সন্তানের যাতে বাড়ির পান্তা ভাত খেয়ে সৈয়দ আহম্মদ কলেজ থেকে উচ্চ শিক্ষা লাভ করতে পারে সেই লক্ষে তিনি এইচএসসি কার্যক্রম থেকে শুরু কলেজটিতে মাস্টার্স ডিগ্রী চালু করেন। তিনি ২০১১ সালের ১২ ডিসেম্বর অধ্যক্ষ পদ থেকে অবসর গ্রহণ করেন। এছাড়াও তিনি ১৯৮৫ সালে সোনাতলা উপজেলা পরিষদের প্রথম উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

তিনি মার্চ মাসের ১ম সপ্তাহে বগুড়া শহরের জলেশ্বরীতলা বাসায় ব্রেন স্ট্রোক করেন। এরপর তাকে ঢাকা মহাখালী মেট্রোপলিটন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে আনোয়ার মডার্ন হাসপাতাল ও ঢাকা স্কয়ার হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানেও তার অবস্থার অবনতি হলে মুগদা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত বুধবার তার শরীরে করোনা উপসর্গ দেখা দেয়। এরপর চিকিৎসক তার রক্ত পরীক্ষা করে তার শরীরে করোনা পজেটিভ পান বলে সৈয়দ আহম্মদ কলেজের অধ্যক্ষ মো. সাইদুজ্জামান নিশ্চিত করেন।