বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে স্ত্রীর পরকিয়ার কারণে স্বামী খুন ‘‘স্ত্রী মিনাসহ ৪ জনকে গ্রেফতার’’

জাফরুল সাদিক, সারিয়াকান্দি (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ সারিয়াকান্দিতে স্ত্রীর পরকিয়ার কারণে স্বামীকে খুন করা হয়েছে। এ খুনের সাথে জড়িত মাস্টারমাইন্ড স্ত্রী মিনা বেগম (২৩) পরকীয়া প্রেমিক মামাতো ভাই শিবলু ফকিরা সহ পুলিশ ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে।

স্থানীয়রা ও প্রত্যক্ষদর্শী জানান, গত ৪ বছর পূর্বে উপজেলার পৌর এলাকার কুঠিবাড়ি গ্রামের মোঃ কামাল এর মেয়ে মিনা বেগমের বিয়ে হয়েছিল ফুলবাড়ী মধ্যপাড়া গ্রামের মৃত সালাউদ্দিনের ছেলে আশিক(২৫) এর সাথে। বিয়ের পর থেকেই দাম্পত্য জীবনে কলোহ লেগেছিল। তাদের ঘরে ৩ বছরের একটি ছেলে সন্তান জন্ম নিয়েছে। গত শুক্রবার বিকেলে অটো রিজার্ভ ভাড়া নিয়ে চলে যাওয়ার পর সে আর বাড়ি ফিরছিল না।

তবে রোববার সকালের দিকে ছাগলধরা পূর্ব পাড়া গ্রামের নিকট বাঙালী নদী থেকে আশিকের লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। চাঞ্চল্যকর এ খুনের ঘটনার বর্ণনা দিয়ে সারিয়াকান্দি থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মোঃ আল আমিন গতকাল দুপুরে স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, আশিকের স্ত্রী মিনা বেগম এ খুনের ঘটনায় মুল পরিকল্পনায় ছিল।

এ অনুযায়ী মিনার মামাতো ভাই শিবলু ফকিরা (২৫) ব্যাটারী চালিত অটো রিক্সা সহ তাকে ফুলবাড়ী ষ্ট্যান্ড থেকে নিয়ে ছাইহাটার দিকে চলে যায়। ওই দিন রাত ১১টা পর্যন্ত সময় কাটানোর পর সারিয়াকান্দির উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। রাত ১২ টার দিকে পথিমধ্যে রামচন্দ্রপুর চৈতের বিলের ব্রীজের উপর এলে অটো রিক্সা থামিয়ে দু’এক কথা বলাবলি করার পরই আশিকের গলায় রশি পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয় এবং দাহ্য পদার্থ দিয়ে তার মুখ মন্ডল ঝলছে দেয়া হয়।

এসময় সাথে থাকা শান্ত নয়ন সিয়াম (২১) ও নাইম (২২) এ খুনের কাজে সহযোগিতা করে। পরিকল্পনা মোতাবেক খুন করার পরপরই মিনা বেগম কে মোবাইল ফোনে জানায় খুনিরা। রাত ১টার দিকে ওই অটোতে করেই নিয়ে এসে সারিয়াকান্দিস্থ বাঙালী নদীর ব্রীজের উপর থেকে তাকে নদীতে ফেলে দেয়া হয়। এব্যাপারে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন নিহতের বড়ভাই আনিছ মিয়া।

সে জানায়, কয়েক ঘন্টার মাথায় ওসি আল আমিনের নেতৃত্বে এসআই মাহমুদুর রহমান একদল সঙ্গীয় পুলিশ সহ হত্যাকারীদের খুজে বের করতে পারায় তিনি সন্তোস প্রকাশ করেছেন এবং হত্যাকরীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেন।