বগুড়ার শেরপুরে এবার নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতকরণে মাঠে ইউএনও লিয়াকত আলী

 নিয়াজ মোর্শেদ নাইম, দুপচাঁচিয়া-আদমদীঘি প্রতিনিধি: এবার নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতকরণে মাঠে নেমেছেন শেরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ন ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট লিয়াকত আলী শেখ। মোবাইল কোর্টের অভিযান তিনি ০৬ দই কারখানার মালিককে ১ লক্ষ ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ২৩ সেপ্টেম্বর উপজেলার পৌরসভাস্থ বিভিন্ন দই ও মিষ্টি কারখানায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে এ জরিমানা করা হয়।

উক্ত অভিযানে বগুড়া র‌্যাবের কোম্পানী কমান্ডার সিনিয়র এএসপি জনাব স্বজল কুমার সরকারসহ র‌্যাবের সদস্যগণ মোবাইল কোর্টকে সহায়তা করেন। সেবাগ্রহীতাদের জীবন বিপন্ন হতে পারে এমন কাজ করা তথা স্বাস্থ্যবিধি না মানায়, নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে দই ও মিষ্টি উৎপাদন, কারখানায় ধুমপান করায় ০৬ দই কারখানাকে মোট ১ লক্ষ ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। তাদেরকে ভোক্তা অধিকার আইন,২০০৯ এর আওতায় শাস্তি প্রদান করা হয়। এসময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন,বর্তমান সরকার নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতকরণে বদ্ধপরিকর। নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে শেরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট লিয়াকত আলী শেখ বলেন, দেশে প্রায় ২৫ লাখ খাদ্য ব্যবসায়ী রয়েছে। তাদের মধ্যে ১৫ লাখ প্রত্যক্ষ ও ১০ লাখ পরোক্ষভাবে জড়িত। ব্যবসায়ীদের বেশির ভাগই অপ্রাতিষ্ঠানিক। তাদের মধ্যে রয়েছে ক্ষুদ্র দোকানদার ও ফেরিওয়ালা। খাদ্য ব্যবস্থাপনায় জড়িত রয়েছে প্রচুর প্রতিষ্ঠান। তাই নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে উৎপাদক, বিপণনকারী, ভোক্তা—সবাইকেই সচেতনতা ও দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়ে যাচ্ছে সরকার। এবং প্রয়োজনে আইনের প্রয়োগ নিশ্চিতে বদ্ধপরিকর। এ ধারাবাহিকতায় জনস্বার্থে মোবাইল কোর্টের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলেও জানান এই কর্মকর্তা।