ফ্রান্সে স্থানীয় নির্বাচনে কাউন্সিলর প্রার্থী বাংলাদেশি ‘সরুফ ছদিওল’

ছাদিকুর রহমান স্বপন(স্পেন প্রতিনিধি), চ্যানেল এস: ফ্রান্সে স্থানীয় নির্বাচনে কাউন্সিলর প্রার্থী বাংলাদেশের সরুফ ছদিওল, ভোট গ্রহণ ১৫ এবং ২২ মার্চ বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতন ফ্রান্সেও প্রবাসী বাংলাদেশিরা বসবাস করছেন । ফ্রান্সে বাংলাদেশীদের যাত্রা সত্তরের দশক থেকে শুরু হলেও আশির দশকের পর থেকেই আস্তে আস্তে বাংলাদেশীরা এদেশে বসতি শুরু করেন । মূলত নব্বই দশকের পর থেকে সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে থাকে এবং ২০০০ সালের পর তা কয়েকগুণ বৃদ্ধি পায়। নির্দিষ্ট করে কোনো তথ্য জানা না থাকলেও ধারণা করা হয় বর্তমানে দেশটিতে ৫০ হাজারের অধিক প্রবাসী বাংলাদেশী বাস করছেন, যা দিনে দিনে বৃদ্ধিই পাচ্ছে । আর সেই সাথে ফ্রান্সে বসবাসকারী ও বেড়ে উঠা প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও ইউনিভার্সিটিতে লেখা পড়া করার পাশাপাশি ফরাসি সোসাইটিতে বিভিন্নভাবে বাংলাদেশকে উপস্থাপন করছেন । ব্যবসা বাণিজ্যের পাশাপাশি অনেকে করছেন সরকারী চাকুরি । তাদের মধ্যে আবার কিছু সংখ্যক প্রবাসীরা ফরাসী মূলধারার রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত রয়েছেন ।

এদের মধ্যে অন্যতম “সরুফ ছদিওল” । তিনি প্রায় ১৯ বছর যাবত ফ্রান্সে বসবাস করে আসছেন । গত ১০ বছর ধরে “সরুফ ছদিওল” ফরাসি রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত । তিনি প্যারিসের উপকন্ঠ সেন্দেনিস এলাকাতে বসবাস করেন । ফ্রান্সের প্যারিসের পরই সবচেয়ে বেশি প্রবাসী বাংলাদেশিদের বসবাস এই এলাকায় । গেল এক যুগেরও বেশি সময় ধরে এখানে কমিউনিস্টদের রাজত্ব । আগামী ১৫ ও ২২ মার্চ ফ্রান্সে একযোগে অনুষ্ঠিত হবে স্থানীয় প্রশাসন সরকার নির্বাচন । বাংলাদেশী অধ্যুষিত প্যারিসের উপকন্ঠে সেন্দেনিসে মেয়র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন সংগ্রহ করেছেন ৯ জন প্রার্থী । শেষ পর্যন্ত ভোটের লড়াইয়ে কতজন টিকে থাকেন সেটা জানা যাবে ফেব্রুয়ারীর ৬ তারিখ । তবে সোসালিস্ট পার্টির মেয়র প্রার্থী “মাতিউ হানাতা” ভোটের মাঠে শেষ পর্যন্ত থাকবেন এবং উন্নয়নের নানান প্রতিশ্রুতির কথা জানান।

একই এলাকা থেকে সোসালিস্ট পার্টি থেকে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত ফরাসি নাগরিক বিশিষ্ট ব্যবসায়ী “সরুফ ছদিওল” কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচন করছেন । “মাতিউ হানাতার” প্যানেল থেকে নির্বাচনে লড়ছেন মোট ৫৫ জন প্রার্থী । তাদের মধ্যে কাউন্সিল প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত ফরাসি নাগরিক “সরুফ ছদিওল” । “সরুফ ছদিওলের” বাড়ি সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার বারহাল ইউনিয়নের খিলোগ্রামে । তার বাবার নাম মৃত “দুদু মিয়া ছদিওল” । তিনি ২০০১ সালে ফ্রান্সে আসেন এবং ২০১১ সাল থেকে সোসালিস্ট পার্টির রাজনীতির সাথে যুক্ত হন । সোসালিস্ট পার্টির মেয়র প্রার্থী “মাতিউ হানাতা” বলেন – সেন্দেনিস এলাকাতে একটা মিশ্র জাতির বসবাস । এখানে নিরাপত্তা নিয়ে অনেক ঘাটতি রয়েছে । যার ফলে অনেক সময় অনেক অঘটনের খবর আমরা পাই । এই বিষয়গুলো অনেক গুরুত্ব দিয়ে দেখছি ।

বিশেষ করে বাংলাদেশীদের কথা যদি বলি , বাংলাদেশীরা অনেক শান্তি প্রিয়, তবে তাদের মধ্যে ইন্টারগেশনের অভাব রয়েছে । মিশ্র সংস্কৃতির চর্চায় একটা সেতু বন্ধন তৈরি করতে হবে। ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসার ঘটাতে বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছি, সবাই ভোট দিতে আসবেন । ফ্রান্সে এবারের স্থানীয় প্রশাসন সরকার নির্বাচনে কাউন্সিল হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন একমাত্র বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত ফরাসি নাগরিক সরুফ ছদিওল । তিনি সকলের কাছে দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করে বলেন – কাউন্সিল প্রার্থী মধ্যে আমি একজন প্রার্থী, আমি এই এরিয়াতে বাংলাদেশীদের নিয়ে একটি গণসংযোগ করতে যাচ্ছি , আপনারা যারা বাংলাদেশী ভোটার আছেন ১৫ এবং ২২ মার্চ মাতিউ হানাতাকে ভোট দেওয়ার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি । তিনি আরো বলেন- যারা ইতিমধ্যেই ফরাসি নাগরিকত্ব লাভ করেছেন , কিন্তু ভোটার হননি , আপনারা আমার সাথে ৭ ফেব্রুয়ারির মধ্যে যোগাযোগ করবেন । এর আগে গত ১৯ শে নভেম্বর ফরাসি প্রেসিডেন্ট “ইমানুয়েল ম্যাকরণ” মেয়র সম্মেলনে নির্বাচনের দিন ঘোষণা করেন । এসময় তিনি মেয়রদের ক্ষমতা বৃদ্ধির কথা উল্লেখ করেন ।