ফুলবাড়ীতে চোরাই মালামাল উদ্ধারসহ চোরের বিচার দাবীতে গ্রামবাসী ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন

 মোঃ হারুন-উর-রশীদ, ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে পর্যায়ক্রমে চুরি যাওয়া কৃষি যন্ত্রপাতিসহ মালামাল উদ্ধার এবং চুরির সাথে জড়িত চোরদের বিচারের দাবীতে গতকাল শনিবার সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন গ্রামবাসী। ফুলবাড়ী উপজেলার ৭নং শিবনগর ইউনিয়নের ফুলবাড়ী-পার্বতীপুর সড়কের রামভদ্রপুর মোড় নামক স্থানে রামভদ্রপুর গ্রামের নারী-পুরুষেরা সকাল ১১ টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন।

মানববন্ধন কর্মসূচি চলাকালে দাবির সমর্থনে বক্তব্য রাখেন শিক্ষক মোস্তাকিম হক বাবু, বাচ্চু মিয়া, আবু তাহের, আফজাল হোসেন, রেজাউল ইসলাম, মনিরুজ্জামান মনির, মমিনুল হক, নূর আলম প্রমুখ। এতে গ্রামের দু’শতাধিক গ্রামবাসী অংশ নেন। শিক্ষক মোস্তাকিম হক বাবু, বাচ্চু মিয়া ও রমজান আলী বলেন, গত বছরের ৫ ডিসেম্বরে রামভদ্রপুর গ্রামের রমজান আলীর ধান মাড়াই মেশিন চুরি হয়। একইভাবে চলতি বছরের ৫ জানুয়ারী গ্রামের শরিফুল ইসলামের অটো চার্জার, ৫ ফেব্রুয়ারীতে খোরশেদ আলমের চার্জার ভ্যান, একই তারিখে বাতাসু মিয়ার চার্জার ভ্যান, মার্চ মাসের প্রথম সপ্তাহে ১৫০ সিসি এ্যাপাচি মোটরসাইকেল, এবং ১ এপ্রিল মধ্যদূর্গা সংলগ্ন ফুলবাড়ী এলাকা থেকে বাচ্চু মিয়ার একটি ট্রাক্টর চুরি যায়। এরমধ্যে ধান মাড়াই মেশিনটি রং বদলানো অবস্থায় রংপুরের মিঠাপুকুরের বালুয়া ছড়ান থেকে নিজ তৎপরতায় উদ্ধার করা হয়। বিষয়গুলো নিয়ে থানায় অভিযোগ দেওয়া হলেও থানা পুলিশ চুরি যাওয়া মালামাল উদ্ধারসহ চুরির সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের গ্রেপ্তারে কোন ভূমিকা রাখছে না।

উপরোন্ত চুরি যাওয়া ধান মাড়াই মেশিন উদ্ধার হওয়ার পরও এ বিষয়ে কোন খোঁজখবর নেয়নি কেউ। ফলে এলাকাবাসী তাদের কৃষি যন্ত্রপাতিসহ জীবন জীবিকার ধনসম্পদসহ মালামাল রক্ষা নিয়ে চরম উৎকন্ঠার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন। চোরেরা প্রতি মাসের ৫ তারিখ চুরির দিন নির্ধারণ করে চুরি করছে। মে মাস থেকে গ্রামবাসী পাহারা বসানোর কারণে মে মাসে এবং জুন মাসে কোন চুরি হয়নি। গ্রামবাসী চোরের হাত থেকে সম্পদ রক্ষার দাবিতে বাধ্য হয়ে মানববন্ধন করছেন।

থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. ফখরুল ইসলাম বলেন, ঈদের আগে অসুস্থতার কারণে ছুটিতে থাকায় রামভদ্রপুর গ্রামের বিষয়টি পরিদর্শক (ওসি-তদন্ত) ভালো বলতে পারবেন। থানার পরিদর্শক (ওসি-তদন্ত) মো. মাহামুদুল হাসান বলেন, গ্রামবাসীর অভিযোগ পুরোপুরিই বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও অসত্য। থানায় মামলা কিংবা অভিযোগ দিতে এসে সেটি নেওয়া হয়নি এমন ঘটনা কখনোই ঘটেনি।

রামভদ্রপুর গ্রামের রমজান আলীর চুরি যাওয়া ধান মাড়াই মেশিন একই গ্রামের গোলাম মোতুজার শ্বশুরবাড়ী এলাকা মিঠাপুকুরের বালুয়া ছড়ান থেকে উদ্ধারকে কেন্দ্র করে রমজান আলী ও গোলাম মোতুজার মধ্যে সন্দেহ-সংশয় নিয়ে বিরোধ সৃষ্টি হয়েছে। এ নিয়ে হিলির ডাঙ্গায় উভয় পক্ষের মধ্যে অপ্রীতিকর ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত ১০ জুন বুধবার উভয় পক্ষ থানায় অভিযোগ দিয়েছেন।

অভিযোগটি পাওয়ার পরপরই থানার এএসআই মশিউর রহমানকে তদন্তের দায়িত্ব দিয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ-ওসি স্যারের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে বলা হয়। পওে থানার অফিসার ইনচার্জ-ওসি স্যারের দিকনিদের্শনায় মশিউর রহমান একাধিকবার ওই গ্রামে গিয়ে তদন্তসহ অভিযোগটি মামলা আকারে দেওয়ার জন্য থানায় আসতে বলার পরও কেউই মামলা দিতে আসেনি।