ফিলিপাইনে আগ্নেয়গিরির ভয়াবহ সতর্কবার্তা, বিমান চলাচল বন্ধ

ফিলিপাইনে ‘তাল’ আগ্নেয়গিরি সক্রিয় হয়েছে। ওই দেশে এটি হলো সবচেয়ে সক্রিয় দ্বিতীয় আগ্নেয়গিরি। এ থেকে আজ সোমবার খুব সকাল থেকেই লাভা উদগীরণ শুরু হয় ।

এটি থেকে খুব দ্রুত বড় ধরনের বিস্ফোরণ হতে পারে বলে সতর্কতা জারি করেছে কর্তৃপক্ষ। একইসঙ্গে ম্যানিলা বিমানবন্দরের সব ফ্লাইট ওঠা-নামা বন্ধ করে দিয়েছে।

রবিবার স্থানীয় সময় বিকেলে রাজধানীর প্রায় ৩৭ মাইল দক্ষিণে দেশটির তাল আগ্নেয়গিরিতে অগ্ন্যুৎপাত শুরু হয়। এই আগ্নেয়গিরির লাভা থেকে বিপজ্জনক বিস্ফোরণ হতে পারে বলে সতর্কতা জারি করেছেন বিশেষজ্ঞরা। বলছেন, দ্রুত সংশ্লিষ্ট তিনটি শহরের বসবাসকারীদের সরিয়ে নেওয়া হোক।

ফিলিপাইন ইনস্টিটিউট অব ভলকোলজি অ্যান্ড সিজমোলজি জানিয়েছে, আগ্নেয়গিরিটির অগ্ন্যুৎপাতের গতি দ্রুত বাড়ছে। এখনই এর ক্রমাগত অগ্ন্যুৎপাত বা বিস্ফোরণ আশপাশের ছয় থেকে নয় মাইল (১০ থেকে ১৪ কিলোমিটার) পর্যন্ত উদ্যত হচ্ছে। যা গিয়ে ধরছে কুইজন সিটি পর্যন্ত। একইসঙ্গে অনেকদূর থেকে অগ্ন্যুৎপাতের ঘন কালো ধোঁয়া দেখা যাচ্ছে।

তাল আগ্নেয়গিরি সম্পর্কে কিছু তথ্য: ২৩০ বর্গকিলোমিটারের লেক তাল-এর মধ্যবর্তী স্থানে অবস্থিত সক্রিয় আগ্নেয়গিরি তাল।  তাল একটি জটিল আগ্নেয়গিরি। এর অর্থ হলো অন্য আগ্নেয়গিরির আকৃতি হয় কোণের মতো। অর্থাৎ তার একটি জ্বালামুখ থাকে। কিন্তু তাল-এর তা নয়। এর একাধিক জ্বালামুখ রয়েছে। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তা পরিবর্তিত হয়। একে আগ্নেয়গিরির মধ্যে আগ্নেয়গিরি হিসেবে অভিহিত করা হয়। বলা হয়, অত্যন্ত বিপজ্জনক এটি। প্রায় ৫০০ বছরের মধ্যে কমপক্ষে ৩০ বার বিভিন্নভাবে তাল থেকে অগ্নুৎপাত হয়েছে। সম্প্রতি অগ্নুৎপাত হয়েছে ১৯৭৭ সালে। ১৯১১ সালের অগ্নুৎপাতে নিহত হয়েছেন প্রায় ১৫০০ মানুষ। ১৯৭৪ সালের উদগীরণ স্থায় হয় বেশ কয়েক মাস।