ফরিদপুর চিনিকলে আখচাষী ও শ্রমিকের পাওনা ৩১ কোটি টাকা

 মফিজুর রহমান মুবিন,মধুখালী ফরিদপুর প্রতিনিধি: ৬ মে বুধবার : শিল্প মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রনাধীন বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশনের আওতায় দেশের ১৫ টি চিনিকলের সাথে মধুখালীতে অবস্থিত ফরিদপুর চিনিকল, চিনিকলের শ্রমিক, কর্মচারী ও কর্মকর্তারা তিন মাসের বেতন-ভাতা না পাওয়ার কারণে আর্থিক সংকটে ভুগছে। আর সেই সাথে চলছে মানবেতর জীবনযাপন। অন্যদিকে মিলসগেট এলাকার আখচাষীদের আখের মূল্য বাবদ তাদের পাওনা রয়েছে ৪ কোটি টাকা। আখচাষী ও শ্রমিকদের বেতন ভাতা ও অন্যান্য পাওনার দাবিতে আজ বুধবার সকাল ৯ টায় মধুখালীতে অবস্থিত ফরিদপুর চিনিকলের প্রধান ফটকে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে ১ ঘন্টা ব্যাপী বিক্ষোভ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এ সময় সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন শ্রমজীবী ইউনিয়নের সভাপতি শাহ্ মো. হারুন অর রশিদ, সাধারণ সম্পাদক কাজল বসু, আখচাষী কল্যাণ সংস্তার সাধারণ সম্পাদক মো. সিরাজুল ইসলাম, শ্রমজীবি ইউনিয়নের যুগ্ম সম্পাদক মো. আব্দুল বারিক বিশ্বাস প্রমুখ। জানা যায়, এ শিল্পের সাথে জড়িত প্রায় ৩০ লক্ষ লোক রয়েছে। আখচাষী থেকে শুরু করে ব্যবসায়ী, কর্মরত শ্রমিক, কর্মচারী,কর্মকর্তাসহ এ শিল্পের সাথে সংশ্লিষ্টসকলকেই হা-হুতাশায় ভুগতে দেখা যায়। কারণ হিসেবে জানা যায়, সময়মত আখচাষীদের পাওনা পরিশোধ না করা, কর্মরতদের সময়মত বেতন-ভাতা না পাওয়া, সময়মত চিনি বাজার ধরে না রাখা ইত্যাদি। বর্তমানে করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে দ্রব্যমূল্যে ¯স্থিতিশীল না থাকায় এক দিকে যেমন সমস্যা অন্যদিকে দোকান হতে দীর্ঘদিন বাকিতে নিত্যপণ্য খাওয়ায় মোটা অংকের দেনা হয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় নিত্যপণ্যের বাজার করতে পারছে না চিনিশিল্পে কর্মরতরা।

চিনিকলে কর্মরত প্রায় ৮‘শত শ্রমিক কর্মচারীবৃন্দ ফেব্রয়ারী, মার্চ , এপ্রিল ও চলতি মে মাসের বেতন না পেয়ে আর্থিক সংকটে দিন অতিবাহিত করছে। ঠিকমত নিত্যপণ্যের বাজার না করতে পেরে মানবেতর জীবনযাপন করছেস তারা। বক্তব্য (কাজল বসু,সাধারণ সম্পাদক শ্রমজীবী ইউনিয়ন।