ফরিদপুরে কলেজ ছাত্রীকে পুড়িয়ে হত্যা: প্রেমিকের বিরুদ্ধে মানববন্ধন

এস.এম আকাশ, ফরিদপুর জেলা প্রতিনিধি:  ফরিদপুরে কলেজ ছাত্রী দেলোয়ারা ওরফে দিলুকে পুড়িয়ে হত্যার প্রতিবাদে ও হত্যাকারী কথিত প্রেমিকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে মানববন্ধন পালিত হয়েছে। রবিবার বেলা ২টার দিকে ফরিদপুর প্রেসক্লাবের সামনের মুজিব সড়কে এই মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। মানববন্ধন চলাকালে বক্তারা ঘাতক স্বাধীনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেন।
জানা যায়, বেসরকারী চাকরীজীবি ও ফরিদপুর সিটি কলেজের ছাত্রী দেলোয়ারা দিলুকে তার প্রেমিক আলামিন ওরফে স্বাধীন, তার মা ও বাবা মিলে কেরোসিন ঢেলে শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয় বলে অভিযোগ উঠেছে। গত ২৬ তারিখে এই ঘটনা ঘটে। ৪ দিন ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে মারা যান দিলু। পরিবারে দাবী, ৫ বছর আগে প্রথম স্বামীর সাথে ডিভোর্স হওয়ার পর থেকে জীবন সংগ্রাম শুরু হয় দরিদ্র পরিবারের মেয়ে দিলুর। বিভিন্ন সময়ে বেসরকারী ক্লিনিক, ব্যাংকে চাকরির পাশাপাশি পড়াশুনাও চালিয়ে আসছিল দিলু। সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড করতে গিয়ে আলামিন ওরফে স্বাধীন নামে এক ছেলের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে দিলুর। এর পর থেকে আয়ের সব টাকাই দিলু দিয়ে দিতো স্বাধীনের হাতে।
ঘটনাচক্রে দিলু জানতে পারে স্বাধীন অন্যত্র বিয়ে করছে। এটা জানতে পেরে হাতে কেরোসিনের বোতল নিয়ে স্বাধীনদের বাড়ির উঠোনে গিয়ে দিলু স্বাধীনকে হুমকি দেয় তাকে বিয়ে না করলে সে শরীরে আগুন দিয়ে আত্মহত্যা করবে। পরিবারের অভিযোগ এসময় স্বাধীন ও তার পরিবার ঘর থেকে বের হয়ে দিলুর শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়।
ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে মৃত্যু হওয়ার কারনে শাহাবাগ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে দিলুর পরিবার। সেই মামলার সূত্রে শাহাবাগ থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলে ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করে রাতেই লাশ পরিবারে কাছে হস্তান্তর করে। রবিবার বাদ আসর নামাযে জানাজা শেষে শহরের আলীপুর গোরস্থানে তার দাফন সম্পন্ন করা হয়।
এই বিষয়ে কোতয়ালী থানার সেকেন্ড অফিসার উপ পরিদর্শক বেলাল হোসেন জানান, তারা এখনো কোন অভিযোগ পাননি, তবে স্থানীয়দের কাছ থেকে মৌখিক ভাবে ঘটনাটি জেনেছেন। অভিযোগ পেলে মামলা নিয়ে আইননানুগ যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।