ফরিদপুরের মধুখালীতে প্রভাবশালীদের দখলে দশ একর সরকারি জমি!

মফিজুর রহমান মুবিন, মধুখালী (ফরিদপুর) প্রতিনিধিঃ এ যেন হাতে আলাদীনের চেরাগ পেয়েছে ভূমি দস্যুরা। ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার পরীক্ষিতপুর মৌজার প্রায় দশ একর জায়গা প্রভাবশালী মহলের দখলে রয়েছে। উপজেলা পরিষদ থেকে সামান্য দূরে ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক সংলগ্ন রাস্তার দু’ধারের প্রায় দশ একর জায়গা প্রভাবশালী মহলের দখলে রয়েছে। লিজ গ্রহণের মেয়াদ বহু বছর আগে শেষ হলেও দশ একর জায়গা ভোগদখল করছে স্থানীয় প্রভাবশালী মহল।

নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রেখে শুধুমাত্র ভোগদখল নয়; দখলকৃত জমির মধ্যে ৩৫ শতাংশ জমি হালিম শিকদার নামের জনৈক ব্যক্তি বন্ধক রেখে বাৎসরিক ভিত্তিতে অর্থ গ্রহণ করে চলেছেন। বন্ধকী জমিতে উৎপাদিত হচ্ছে কলা, পেঁপে, মরিচসহ বিভিন্ন ফসল। সেখানে থাকা একাধিক বড় বড় পুকুরে মাছ চাষ ও মাছের পোনা উৎপাদন করা হচ্ছে বানিজ্যিক ভিত্তিতে। এতে প্রভাবশালী মহল আর্থিকভাবে উপকৃত হলেও সরকার রাজস্ব বঞ্চিত হচ্ছে বছরের পর বছর। উক্ত জমিতে কয়েকজন ভূমিহীন বসবাস করলেও বসবাসকারীর অধিকাংশই ভূমিহীন নয়। সরেজমিনে দেখা যায় পাশাপাশি বড় দুটি টিনসেডের ঘরে ৫/৬টি পরিবার বসাবস করছে। একটি ঘরে একাধিক পরিবার কক্ষ বিভক্ত হয়ে বসবাসের কারণ জানতে চাইলে সেখানে বসবারত ব্যক্তিরা হলেন আমরা মাসিক সাতশ টাকা হারে ভাড়াটিয়া হিসেবে এখানে বসবাস করছি।

বসবাসকারীদের একটি অংশ পাশ্ববর্তী জুট মিলে শ্রমিক হিসেবে কাজ করে। মূলত ভাড়ার চাহিদা থাকায় প্রভাবশালী মহল সেখানে ঘর উত্তোলন করে আর্থিক লাভবান হচ্ছেন। সরকারি হেলিপ্যাড ও তার পাশ্ববর্তী জায়গাও দখল করে নিয়েছে সেখানে বসবাসকারীরা। অনুসন্ধানে জানা যায় ২০১৪ সাল পর্যন্ত নিয়মিতভাবে লিজ পরিশোধ করে সরকারি ভূমি ভোগদখল করলেও ২০১৫ সাল থেকে আর লিজের টাকা পরিশোধ করা হয়নি। এ বিষয়ে জানতে চাইলে মৎস্য উৎপাদনকারী ও ব্যবসায়ী মোঃ আবু বক্কার মোল্যা বলেন, আমরা লিজের টাকা পরিশোধের জন্য আবেদন করলেও কোন সাড়া পাওয়া যায়নি। মিরাজ হোসেন নামের জনৈক ব্যক্তি বলেন, আমার ছোট্ট একটা ঘর আছে তবে প্রকৃত কোন ভূমিহীনের প্রয়োজন হলে আমি জায়গা ছেড়ে দিবো। বিপুল পরিমান সরকারি জমি বেহাত হওয়ার বিষয়ে জানতে সড়ক ও জনপথ বিভাগের এস.ও মোঃ আব্দুর রশিদ বলেন জমি সংক্রান্ত বিষয়টি দেখাশোনা করেন সার্ভেয়ার সাহেব। তবে যেহেতু আপনাদের মাধ্যমে অনিয়মের বিষয়টি জানতে পারলাম সেহেতু বিষয়টি সম্পূর্ণ অবগত হয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।